Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  পাঠকের মতামত  ||  ৯ম বর্ষ ৩য় সংখ্যা আষাঢ় ১৪১৬ •  9th  year  3rd  issue  Jun-Jul  2009 পুরনো সংখ্যা
পাঠকের মতামত Download PDF version
 

পাঠকের মতামত

 

 

 


 

 

 

 

 

জ্যৈষ্ঠ ১৪১৬ সংখ্যা সম্পর্কে মন্তব্যঃ


মোহাম্মদ, জুন ২, ২০০৯

অনিরুদ্ধ আহমেদের দীর্ঘ লেখায় পাকিস্তান, কায়েদে আজম জিন্নাহ এবং অন্যান্য জাতি সম্পর্কে লেখকের মন্তব্যের নিন্দা করছি। এটা অনৈতিক এবং নিন্দনীয়। লেখকের ভাষা এবং প্রাসঙ্গিকতা মর্যাদাহানিকর। আমার অনুরোধ এ ধরনের লেখা আর প্রকাশ করবেন না। আমি বলতে চাই- ‌নিজের চরকায় তেল দাও।

 
হাবীব ইমন, মে ২৭, ২০০৯

এই নগরীকে এখনও আপন বলে জানে! দ্বিধাগ্রস্থ মানুষ এই নগরীকে এখনো প্রিয়তমা ভাবে! আকাশে এখনও গুলিবিদ্ধ হয় পাখিরা নরম, সিক্ত মাটি ভরে যায় কংক্রীটে প্রেমিকার নীল চোখ হয় পাথারে পাথর ! তবু প্রেমহীন মানুষ এই নগরীকে এখনও প্রেমিকা মনে করে! লাল মদে ডুবে যায় লাল গালের তরুণী টিভিবাক্স গিলে খায় সৎ-সংকোচ কালো ধোঁয়ার মত উড়ে বেড়ায় অজস্র টাকাবোকা মানুষ, এই নগরীকে এখনও আপন বলে জানে! র‌্যাম্পের ওপর হাই-হিল তুবড়ি মারে সবল আঁধার লিপস্টিক ঢেকে দেয় যতনে তৃষ্ণার্ত ফাটা ঠোঁট কালো কাঁচ ঢেকে দেয় পাজোরের রমণীটিকেহায়! অন্ধমানুষ. কালো নগরীকে এখনও আলোজ্জ্বল মনে করে

 

তমিজ উদদীন লোদী, মে ২৩, ২০০৯

খুব ভালো লাগলো সংখ্যাটি, কবিতাগুলো। নিয়মিত গল্প প্রকাশ করা হলে ভালো লাগবে। অনলাইন পত্রিকা হিসেবে এটি ইতিমধ্যে স্থান করে নিয়েছে।

 

দীপেন ভট্টাচার্য, মে ১৯, ২০০৯
পড়শীতে এত চমৎকার সব লেখা আছে যে এটা পড়তে সময় লাগবেতবে অনলাইনের সুবাদে পত্রিকাটির অন্য কাগজের নিচে পড়ে হারিয়ে যাবার সম্ভাবনা নেই, বারে বারে ফিরে আসা যাবে যতক্ষণ না আমার কম্পিউটার ঠিক থাকেমনে থাকতে থাকতে দুটো মন্তব্য করি১) সাবির মজুমদারের ভাল সম্পাদকীয়টি একটু খুঁজে বার করতে হয়েছে, সম্পাদকীয়টা ওপরে থাকলে ভাল হয়২) "বাংলা পড়তে অসুবিধা হলে" লেখাটিতে ম্যাকিনটসে বিভিন্ন ব্রাউজারে (সাফারি, ফায়ারফক্স, অপেরা, এক্সপ্লোরার, ইত্যাদি) ইউনিকোড বাংলা পড়ার ব্যাবস্থার ওপর কিছু নির্দেশনা দিলে ভাল হয়

 

নেপচুন শ্রীমাল, ফ্লোরিডা, মে ১৬, ২০০৯
পড়শীর অনলাইন প্রকাশনা সত্যি চমৎকারএটা যে সম্পাদকদের ভালবাসার কাজ (labor of love) তা দেখেই বোঝা যায় পত্রিকাটি পড়ে আমি বুঝতে পারছি বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির ওপর বাংলাদেশের টান কত গভীর এটা খুবই আশার কথাপশ্চিমবঙ্গ যদি বাঙ্গালী সংস্কৃতি টিকিয়ে নাও রাখতে পারে, আমার বিশ্বাস সাবির ও হাসান ভাইদের মত লোকদের জন্য "ওপার বাংলায়" তার আরো সমৃদ্ধি হবে

 

সিয়াম, মে ১৫, ২০০৯
সাইট টা তো ফাইন


প্রচ্ছদ

প্রচ্ছদশিল্পী : সৈয়দ ইকবাল

মিয়া সাহেব, মে ১৬, ২০০৯ 
প্রকৃতির এত কান্না দেখে আরো কান্না পায় আমাদের কি এই কান্নাকাটি নিয়েই কান্নাকাটি করে যেতে হবে? তবে শিল্পী সৈয়দ ইকবালের কাজ অপূর্বতাতে যদি হেসে হেসে প্রকৃতির জন্য আর আমাদের জন্য কিছু কাজ করার কিছু ইচ্ছা আমাদের হয়!


সম্পাদকীয় 

কবে হবে মনুষ্য রাষ্ট্র?

ইফতেখার চৌধুরী, মে ২২, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

একটি চমৎকার প্রবন্ধ। মিয়া সাহেবের প্রশ্নের উত্তর হল হ্যা সেকুলার রাষ্ট্র শুধুমাত্র আধুনিক সমাজকে রক্ষা করতেই পারে না, বরং আধুনিক সমাজ ব্যবস্থাকে সময়ের সাথে পরিবর্তনেও সহায়তা করতে পারে। পাকিস্তানকে দেখুন, কিভাবে ধর্মীয় গোঁড়ামী কিভাবে একটি আধুনি রাষ্ট্রকে ধ্বংস করছে। ধর্ম মানুষের ব্যক্তিগত এবং রাষ্ট্রের গণতন্ত্রে এর কোন ভূমিকা নাই।

 

মিয়া সাহেব, মে ১৬, ২০০৯
সম্পাদকীয় পড়ে ভাল লাগলকিন্তু ধর্ম নিয়ে যেমন বাড়াবাড়ি ভাল নয় তেমনি ধর্মের বিরুদ্ধে বাড়াবাড়ি করা ভাল নয়ধর্মকে বাদ দিলেই কি আধুনিক রাষ্ট্র আর আধুনিক সমাজব্যবস্থা কায়েম হয়ে যাবে?

মূল রচনাবলী : গ্লোবাল ওয়ার্মিং ও বাংলা বদ্বীপ

অতিথি সম্পাদকদের কথা

গ্লোবাল ওয়ার্মিং (বিশ্বের উষ্ণায়ন) নিয়ে ভাবনা

 

পরিবেশ মিত্র, মে ২০, ২০০৯
গ্লোবাল ওয়ার্মিং নিয়ে বাজার গরম করুক প্রাইভেট জেটে সফরকারী, গড় আমেরিকান নাগরিকের চাইতে দশগুণ বেশি বিদ্যুত খরচ করনেওয়ালা আল গোরের মতন মানুষেরাওটা বড়লোকের অসুখআসুন, আমরা গরীব দেশের মানুষরা বরং পানীয় জল, শৌচ ব্যবস্থা নিয়ে ভাবি 

বিশ্ব উষ্ণায়ন ও বাংলাদেশ  : দীপেন ভট্টাচার্য

আলবেলী, মে ১৬, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

দীপেনদা, খুবই সুন্দর এবং সময়োপযোগী প্রবন্ধ। আমরা আশাবাদী জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে বাংলাদেশের সবাই সজাগ হবেন এবং পরিবেশ রক্ষার্থে এগিয়ে আসবেন। বাংলাদেশের জন্য বনজ এবং আবাদী ভূমি রক্ষার মাধ্যমে বর্ষার পর দষিত পানিতে পলি প্রবাহের গতি রোধ করা অতি জরুরী, যা কিনা আমাদের স্থানীয় নদীগুলিকে দষিত করে। বৃক্ষই হল সমুদ্র উপকূলের ঝড় ও জলচ্ছ্বাসের প্রথম প্রতিরোধ। 

বাংলাদেশে বিশ্বের উষ্ণায়নের প্রভাব - বাপা সাথে আলাপচারিতা

আলবেলী, মে ১৬, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

খুবই ভাল সাক্ষাতকার। পড়শী এবং সাবির মজুমদারকে ধন্যবাদ। এটি সহজেই বোধগম্য যে গ্রামের কম শিক্ষিতরা জলবায়ু পরিবর্তন ও বিশ্ব উষ্ণায়ন সম্পর্কে দ্রুত বুঝতে পারবে কারণ তারাই হল এর ভুক্তভোগী। কিন্তু যখন এটি মহামারীর মত ছড়াবে তখন একসময় সবাই ধনী-দরিদ্র, শিক্ষিত-অশিক্ষিত, ছোট-বড় এমনকি শিশু ও বৃদ্ধরাও এর কবল থেকে রক্ষা পাবে না। সেজন্যই যত তাড়াতাড়ি আমাদের বোধদয় হবে, আমরা বুঝতে পারব যে জনগণ ও কর্পোরেটদের আচরণ পরিবর্তনের মাধ্যমেই জলবায়ু যুদ্ধে জয়ী হওয়া সম্ভব, ততোই আমাদের মঙ্গল।

কার্বন-শক্তি-জল এবং বিশ্বের উষ্ণতা : সুকমল মোদক

দীপেন ভট্টাচার্যমে ১৬, ২০০৯
লেখাটি পড়ে খুবই ভাল লাগলোসাবলীল ভাষায় লেখা ড. সুকমলের উষ্ণায়নের ব্যাখ্যা ও বর্ণনা খুবই বোধগম্যআশা করি ওনার মতে অনেকেই বাংলা ভাষায় বিজ্ঞান সংক্রান্ত রচনা লিখতে উদ্যোগী হবেন

বিশ্ব উষ্ণায়ন ও পশ্চিমবঙ্গ  : নেপচুন শ্রীমাল

আশীষ বসু, মে ১৬, ২০০৯

খুবি চমৎকার এবং তথ্যসমৃদ্ধ প্রবন্ধ।

 

 

নিয়মিত কলাম

পাকিস্তান: জন্মই যার আজন্ম পাপ  : অনিরুদ্ধ আহমেদ

 

মিনহাজ আহমদ, মে ২৩, ২০০৯
মানুষকে ধর্ম, বর্ণ, গোত্র, জাতি, দেশ, জাতীয়তা, লিঙ্গ, ভাষা ইত্যাদি অনেক কিছু দিয়ে বিভাজিত করা যায়ধুর্ত কিছু মানুষ এই বিভাজন থেকে সবসময়ই ফায়দা লুটার চেষ্টা করেসময়-সুযোগে পুরুষ-নারী, জমিদার-প্রজা, আসামি-বাঙালি, ইরাকি-কুর্দি সব ধর্মের-দেশের-লিঙ্গের-জাতির-গো্ত্রের-ভাষার একদল মানুষ অপর একদল মানুষের কাছে নির্যাতিত হচ্ছে বা নির্যাতন করছেএভাবে মানুষকে যতদিন না স্বার্থের কারণে বিভাজন বন্ধ হচ্ছে, যতদিন না আইনে-শাসনে-রাজনীতিতে-অর্থনীতিতে-সামাজিকতায় মানবিক পরিচয়টি প্রাথমিক বিবেচ্য বলে বিবেচিত হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত এ ধরনের হানাহানি বন্ধ করা যাবে নাঅপর এক মন্তব্যকারীর উদ্দেশ্যে বলছি-  অবিভক্ত ভারতের মুসলমানদের অবস্থানকে ভিত্তি করে মানুষকে বিভাজন করার প্রচেষ্টা সৎ উদ্দেশ্য প্রণোদিত ছিলো না বাংলাদেশের জন্ম তার এক বাস্তব প্রমাণমানুষকে এসব বিভাজক দিয়ে যে শৃঙ্খলাবদ্ধ করা যাবে না, কলাম লেখক অনিরুদ্ধের লেখায় সে আশাবাদ জোরালোভাবেই প্রকাশ করেছেন অনিরুদ্ধ আহমদের লেখায় প্রকাশিত দৃষ্টিভঙ্গীর সাথে আমি সম্পূর্ণ একমতএকমত নই জিন্নাহ প্রসঙ্গে 'তার' না লিখে ‍'তাঁর' লিখায়

 

পরবাসী ম্যাক্স, মে ২৩, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

১৯৪৭ এর আগের ভারতের পরিবেশ কি ছিল সে ব্যাপারে আপনার আরো কিছু পড়াশোনার প্রয়োজন আছে । ভারতের মুসলমানদের বর্তমান অবস্থা বিবেচনা করলে আপনার কি মনে হয়, কতজন বাংলাদেশী মুসলমান ভারতীয় নাগরিক হিসেবে লাভবান হবে এই ২০০৯ সালে? আপনি যদি আরো একটু পড়াশোনা করতেন তবে খুঁজে পেতেন যে সে সময় পাকিস্তানের স্বপ্ন শুধুমাত্র জিন্নাহই দেখেননি। ঐ সময় ভারতের অধিকাংশ মুসলমানই চরম দুর্দশার মধ্যে ছিলেন। পাকিস্তানের সৃষ্টি ভারতের সকল মুসলমানদের স্বপ্নেরই প্রতিফলন ছিল।  

 

মিয়া সাহেব, মে ২০, ২০০৯
'
জন্মই আমার আজন্ম পাপ'-এর লেখক দাউদ হায়দারের গণতান্ত্রিক বাংলাদেশে স্থান নেই কেন? শুধু পাকিস্তানকে সমালোচনা করলে চলবে নাতসলিমা, দাউদ যতদিন বাংলাদেশে না ফিরতে পারছেন ততদিন বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল হবে না

 

শামীম চৌধুরী, মে ১৫, ২০০৯

রকভিল, মেরীল্যান্ড

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

পাকিস্তানের পতন এবং ভাঙ্গন দুঃখজনক হলেও অবশ্যম্ভাবী। লেখক সঠিক ভাবেই তার প্রবন্ধের শিরোনামটি লিখেছেন যা কিনা মুসলিম সমাজের উপর বানোয়াট অবিচারের উপর পাকিস্তানের গোড়াপত্তনের প্রতিফলন। লেখককে ইতিহাসের পাতায় ফিরে যাবার জন্য ধন্যবাদ, যেই ইতিহাস এখনো লেখা হচ্ছে এবং ভবিষ্যত বছরগুলোতে দক্ষিণ এশিয়াকে একটি আকৃতি দিতে সমর্থ হবে।

 

প্রযুক্তি বন্ধন

-কৃষক: গ্রামীণ কৃষিতে উত্তরণের সূচনা : মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

 

. মশিউর রহমান, মে ২৮, ২০০৯

সহযোগী অধ্যাপক

তড়িৎকৌশল ও কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ

নর্থ সাউথ বিশবিদ্যালয়, ঢাকা

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

 

এই সুন্দর প্রবন্ধটির জন্য ধন্যবাদ। আমার নিজের গবেষোণার বিষয়ও ই-এগ্রিকালচার, যেখানে আইটি কৃষি ক্ষেত্রে অবদান রাখতে সক্ষম হবে। যদিও কম্পিউটার, মোবাইল, পিডিএফ এর ব্যাবহার এখনো বাংলাদেশে খুবই কম। এসবের ব্যবহার যখন কৃষিক্ষেত্রে প্রবেশ করবে তখন আমরা ই-এগ্রিকালচারের সুফল পাবো। এছাড়াও আমি ই-লার্নিং, ই-হেলথকেয়ার এবং অন্যান্য আইটি বিষয়ের উপর কাজ করছি। পড়শীর উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি।

 

 

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি

মুক্তিযুদ্ধে মহাযাত্রা  :  মোহাম্মদ নুরুল সগীর

 

 

মোহাম্মদ নুরুল সগীর, জুন ২, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবনুবাদ)

আমার এই সাধার একটি প্রবন্ধকে ইলেক্ট্রনিক ভার্সনে রূপান্তর করতে যেরকম দায়িত্বহীনতার পরিচয় দেয়া হয়েছে তাতে আমি খুবই মর্মাহত এবং হতাশ। লেখাটির বিভিন্ন অংশকে ফেলে দেয়া বাদেও আমি বিশ্বাস করতে পারিনি যে আমার নিজের নামটিও ভুলভাবে ছাপা হবে। এটি বিশ্বাস করা সত্যিই কষ্টকর যে এরকম দায়িত্বহীনতা আপনাদের মধ্যে দেখতে হয় যারা কিনা এই সমাজে নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। আশা করি ভবিষ্যতে এরকম দায়িত্বহীনের মতো লেখার অংশ বাদ দেয়া থেকে বিরত থাকবেন। এরকম রূঢ় মন্তব্যের জন্য দুঃখিত।

সাম্প্রতিক

খালেদার বাড়ি এবং বাংলাদেশের রাজনীতি  : শুভ কিবরিয়া

 

রাজীব, মে ২১, ২০০৯

দেখা যাক আওয়ামী লীগ কি করতে পারে।

 

সাহিত্য

 

কবিতা : শামীম আজাদ, ইউনুস রাহী

জামাল উদ্দীন, জুন ৩, ২০০৯
ভাল লাগলশামীম আপার কবিতা। ধন্যবাদ পড়শী। এখানে আমি উল্লেখ করতে চাই শামীম আজাদের আরো দুটি কবিতা ছাপা হয়েছে ঢাকা থেকে প্রকাশিত মাত্রা নামের একটি লিটল ম্যাগাজিনে সম্পাদক ও প্রকাশক- জামাল উদ্দীন

 

নিলুফার বানু লিলি, মে ২৪, ২০০৯

শামীম আপার কবিতা ওনার মতোই সুন্দর আর গভীর অনুভবে। প্রিয় মানুষের প্রিয় কবিতা পড়ে অপূর্ব অনাবিল অনুভূতি। ইউনুস রাহীর লেখা সহজ সরল আর সাবলীল সুন্দর। দুজনকেই অভিনন্দন।

 

 

ব্রজকুমার সরকার, মে ২০, ২০০৯

সম্পাদক- ত্রিস্তুপ

দুর্গাপুর, পশ্চিম বঙ্গ

শামীম আজাদের কবিতা দুটো ভালো লেগেছে। মিথের প্রয়োগ তিনি ভালোই করেছেন, একটু অন্যরকম ছবি তিনি আঁকলেন। শব্দচয়নে নতুনত্ব আছে কিছু শব্দতো এখানে (পশ্চিম বঙ্গে) দেখা যায় না, যা স্বতন্ত্রতার দাবি রাখে। সব মিলে নতুন প্রাপ্তি হল আমার। ইউনুসের কবিতায় একটা সহজ সরলতা আছে, একটা মিষ্টি প্রেমের গন্ধ পাঠককে আবিষ্ট করে রাখে। আজ প্রথম এই সাহিত্য পত্রিকাটির সাথে পরিচয় হল তার জন্য কবি শামীম আজাদকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই।

 

লুনা, মে ১৮, ২০০৯

আপা, আপনাকে মন্তব্য করার সাহস বা যোগ্যতা কোনটাই আমার নাই। তাও বলছি খুব ভাল লাগল কবিতা দুটি। আরো অনেক অনেক লিখুন।

 

বাকি অরিন্দম, মে ১৭, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে অনুবাদ)

কবিতাগুলো সত্যিই চমৎকার। আমি কবিতাগুলোর মধ্যে উড়ে চলছি। মঙ্গলম...।

 

নাম নেই, মে ১৭, ২০০৯

সত্যিই চমৎকার।

 

ঋভূ অনিকেত, মে ১৭, ২০০৯ 
শামিম আজাদ এর কবিতা, দু-ই ভালোপ্রবাসী লেখককে শুভেচ্ছা

 

সুদর্শন দাস, মে ১৭, ২০০৯

খুবই চমৎকার কবিতা। তবুও তুমি বলশরণ আমার ভালো লেগেছে। সত্যিই সুন্দর। ধন্যবাদ শামীম আপা।

 

শোয়েব চমক, মে ১৭, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে অনুবাদ)

শামীম আজাদের কবিতা পড়তে সব সময়ই ভালো লাগে। শব্দগঠন খুবই শক্তিশালী এবং কার্যকরী। আরো পড়ার অপেক্ষায় রইলাম।

 

রূপা চক্রবর্তী, মে ১৬, ২০০৯

শামীম আপা, তোমার কবিতা আমার অন্তর ছুঁইয়ে যায়। কি আশ্চর্য ছবি নির্মা কর তুমি! আমি আনন্দিত। শতমূলী শ্বাস কবিতাটিকে আরো একটু দীর্ঘ করে দাও না আবৃত্তি করি। নিজেকে পাই আমি তোমার কবিতায়। জয় হোক তোমার কবিতার, বেঁচে থাক আমাদের হৃদয়ে।

 

মুর্তাজা তারিন, মে ১৬, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

জীবন হলো না দেখা শিল্পের সংজ্ঞা। আর শিল্প হলো জীবনের সংজ্ঞা।

 

সৈয়দ আনাস পাশা, মে ১৬, ২০০৯

যদিও কবিতা কম বুঝি, এরপরও বলব দারুণ কবিতা। ধন্যবাদ শামীম আপা।

 

সালমা আলী, মে ১৬, ২০০৯

(ইংরেজী থেকে ভাবানুবাদ)

এক কথায় অপূর্ব। খাঁটি বাংলা কবিতা। আমি অবাক হয়ে যাই তিনি বাংলাদেশ থেকে হাজার মাইল দূরে বসে এরকম কিভাবে লিখেন! আশ্চর্য। পড়শীকে ধন্যবাদ শামীম আজাদের কবিতার জন্য।

 

জেড. আই মামুন, মে ১৬, ২০০৯

জল কাফনের উপমা খুব সুন্দর। ধন্যবাদ শামীম আপা।

 

মিল্টন রহমান, মে ১৫, ২০০৯
ছিঁড়ে ছিঁড়ে দেখি ঘাসদের সুরুচির মূল ...... শরীরের আঁক কষে সূচনা সময় বেহুলা ও বিষের কথা বড় মনে পড়ে যায় ... একদা লখিন্দরের ভেলা বিষ পাথরের ধারে কেটে গিয়েছিলো

 

এই কটি লাইন বিভিন্ন প্রযত্নে ব্যাখ্যাতো হতে পারে।

শুভ ভাই এর কথা ভাল লাগল। শামীম আজাদের কবিতা রক্ত মাংসে ঘাসেদের মত সেধে সেধে দেখার মতোই আকুতি থাকে।

 

শুভ কিবরিয়া, ঢাকা,  মে ১৪, ২০০৯

শামীম আপার কবিতা পড়ে ভাল লাগল। সেই একই রকম অস্থিরতা, উষ্ণতা, মগ্নতা, উচ্ছ্বাস, জীবন-গভীর অনুভব...। আপা লিখতে থাকুন।


শিল্প-সংস্কৃতি

কৃষ্ণকলি সবাই বলে তারে  : মাসুম-ডেইজি

মঞ্জু, ক্যামডেন, লন্ডন মে ১৯, ২০০৯

আমার প্রিয় শিল্পী। দীর্ঘায়ু হোন।

নাট্যজন আলী যাকেরের ফটোগ্রাফি : শামীম আজাদ

হাবীব ইমন, মে ২৭, ২০০৯
লেখকেক অভিনন্দনতাঁলেখা বরাবরই চমৎকার নতুন করে বলার অবকাশ নেইনাট্যজগেতর একজন ব্যক্তিত্ব তিনি, আলী যাকেআমাদে অহংকার তিনিলেখার মধ্যে একজন সৃজনী আলোকিচত্র শিল্পী হিসেবে আলী যাকেরকে উপস্থাপন করা হয়েছে


পাঠকের মতামত

 

সালমা আলী, মে ১৬, ২০০৯

আমাদের নিজেদের কবি, যারা দেশের থেকে দূরে বসেও বাংলার মূলধারার জন্য লিখছেন এরকম কবিদের কবিতা দেখে ভাল লাগল। পড়শী সম্পাদকমন্ডলীকে ধন্যবাদ। অন-লাইন পড়শীর জন্য শুভেচ্ছা।

কৌতুক

বেবী মজুমদার, মে ১৫, ২০০৯ 
দ্বিতীয় কৌতুকটি কি 'কৌতুক' বিভাগের ভেতর পড়ে?

কার্টুন

প্রজন্ম'৭১, জুন ১, ২০০৯
কুদ্দুস ভাই চালাইয়া যান, আমরা আছি্ আপনার সাথেতবে খালেদা তো ঘর নিজে বানায় নাইওখানে লেখা দরকার "দানের জায়গা দানের বাড়ী, সেই বাড়ীতে আমি রই, আমি তো সেই বাড়ীর মালিক নই"ধন্যবাদ

 

বিবেক, মে ২০, ২০০৯
খালেদা কে নিয়া রঙ্গ কর? হাসিনার খারাপ দিনও আসতাসে

 

ক্রীড়া

ক্রীড়া কড়চা  : জহিরুল ইসলাম নাদিম

 

শেখ ফেরদৌস শামস ভাস্কর, মে ২৩, ২০০৯
বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের বর্তমান কোচ ডিডো আমার জানা মতে একজন ব্রাজিলীয়, আর্জেন্টাইন ননবোধ করি এটি অনিচ্ছাকৃত ত্রুটি

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.