Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  সম্পাদকীয়  ||  ৯ম বর্ষ ৫ম সংখ্যা ভাদ্র ১৪১৬ •  9th  year  5th  issue  Aug-Sept  2009 পুরনো সংখ্যা
বিশ্ব-অর্থনীতির বর্তমান মন্দা এবং ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা Download PDF version
 

সম্পাদকীয়

 

বিশ্ব-অর্থনীতির বর্তমান মন্দা এবং ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা

 

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক মন্দা চলছে এক বছরেরও বেশী সময় ধরে। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার নতুন প্রশাসন অতিরিক্ত ট্রিলিয়ন ডলার খরচ করে রক্তক্ষরণ সাময়িকভাবে বন্ধ করতে পারলেও অবস্থা স্বাভাবিক হতে আরো বছরখানেক পেরিয়ে যাবে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা। যদিও এর নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবে না। অর্থাৎ কৃস্টাল বল কারো হাতে নেই।

 

বিশ্বমন্দার এই সময়ে চীন ছাড়া আধুনিক শিল্পায়িত বিশ্বের সবারই নাভিশ্বাস অবস্থা। তবে ইউরোপের বৃহৎ দুই অর্থনীতি জার্মানী (গত তিন মাসে প্রবৃদ্ধির হার ১.৩%) ও ফ্রান্স (গত তিন মাসে প্রবৃদ্ধির হার ১.৪%) অর্থনৈতিক অবগতির লাগামটা টেনে ধরতে পেরেছে কিছুটা হলেও। যুক্তরাজ্যের অবস্থাটা এখনো নাজুক (গত তিন মাসে প্রবৃদ্ধির হার -৩.২%) , যুক্তরাষ্ট্রের চাইতেও খারাপ (গত তিন মাসে প্রবৃদ্ধির হার -১.০%)। আমেরিকার চাকুরিহীনদের সংখ্যা জাতীয় ভিত্তিতে ৯.৬% (কদিন আগেও ছিল ১১%) হলেও মন্দার আঘাতটা জনসংখ্যার বেশীরভাগই হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে।

 

আমেরিকান রিকোভারি এ্যাক্ট-এর মাধ্যমে ট্রিলিয়ন ডলার বরাদ্দ করলেও শিক্ষা খরচ ও স্বাস্থ্যবীমার খরচ আকাশচুম্বী। ইউরোপের বিভিন্ন উন্নত দেশগুলো চাকরির নিশ্চয়তা সরকারীভাবে দিলেও আমেরিকাতে সেরকম কিছু নেই। সবটাই করপোরেট মাফিয়ার দখলে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং চাকরী এই তিনটা সেক্টরে ওবামা প্রশাসন তথা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আরো অনেক কিছু সুসংগঠিতভাবে করার আছে। এটা হওয়া উচিৎ আধুনিক ইউরোপীয় সামাজিক-অর্থনৈতিক-রাষ্ট্রীয় কাঠামোর আদলে। বারাক ওবামা সেভাবেই এগুচ্ছেন বলে কারো কারো মত। কিন্তু দুর্মুখেরা এবং বিরুদ্ধবাদীরা সেটা সমাজতান্ত্রিক চিন্তা-চেতনা বলে নাকচ দিচ্ছে।

 

আমেরিকার অর্থনৈতিক দুর্গতির সময় যখন ইউরোপ অপেক্ষাকৃত দ্রুততার সাথে মন্দা কাটিয়ে উঠতে শুরু করেছে তখন অর্থনীতিবিদদের ধারণা তাতে করে আমেরিকার রফতানি বাণিজ্য সহসাই বেড়ে যাবে। আর তাতে করে চাকরির বাজার বছরখানেকের মধ্যেই স্বাভাবিক পর্যায়ে ফিরে আসবে। অর্থাৎ চাকুরিহীনতার হার জাতীয় ভিত্তিতে ৭ শতাংশে নেমে আসবে। এই পূর্বাভাসে কিছু অত্যাশার লক্ষণ থাকলেও ব্যাপারটা অসম্ভব নয়। আমরা ট্রিলিয়ন ডলার ব্যান্ড-এইডের সুফলের আশায় আরো একটা বছর না হয় অপেক্ষাই করলাম। ইতিমধ্যে আবাসন সেক্টর ও রাস্তাঘাট বিনির্মাণ সেক্টর আগের চেয়ে অনেক বেশী স্থির ও বেগবান হওয়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

 

তবে শিক্ষা খাত আর স্বাস্থ্য খাতে ব্যান্ড-এইড চিকিৎসা বেশীদিন কাজ করবে না। দুটো খাতেই আমূল পরিবর্তন দরকার। ওবামা স্বাস্থ্য খাতে পরিবর্তনের উদ্দ্যোগ নিয়েছে। তাতে বিরুদ্ধবাদীরা হৈ চৈ শুরু করলেও স্বাস্থ্যবীমা যাদের নেই কিংবা যারা স্বাস্থ্যবীমা কেনার ক্ষমতা রাখেন না তাদের মনে একটা আশার আলো সঞ্চার করেছে।

 

শিক্ষা খাতে ওবামা প্রশাসন এখনো উল্লেখযোগ্য যুগোপযোগী পদক্ষেপ নেয়নি কিংবা নিতে পারেনি। শিক্ষা খাতে আকাশচুম্বী খরচের কারণে অনেক ছাত্র-ছাত্রীই আমেরিকায় উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন দেখতে ভুলে যাচ্ছে। তদুপরি বাজেট সংকটের কারণে অনেক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষায়তন বন্ধ হওয়ার পথে। শিক্ষার স্বাস্থ্য খারাপ হলে অর্থনীতির স্বাস্থ্য ভাল হওয়ার সুযোগ কম। এটা নতুন করে বলার কিছু নয়, কিন্তু কোথায় যেন একটা গলদ কিংবা ফারাক বর্তমান নীতিনির্ধারকদের মাঝে!

 

এখানে একটা কথা বিবেচনায় আনতেই হয়।  শিল্পায়িত বিশ্বের সবখানে যখন জাতীয় প্রবৃদ্ধির হার শূন্য কিংবা তারো নীচে, চীনের অর্থনীতি তখন শনৈ শনৈ বৃদ্ধি পাচ্ছে গত তিন মাসে প্রবৃদ্ধির হার ১৪.৯%, গত তিন বছরে কখনো শূন্যের নীচে নামেনি। এখান থেকে কয়েকটি বিষয় শিক্ষণীয় (১) আন্তর্জাতিক ব্যবসা-বাণিজ্যের অভাব নেই, (২) নতুন উদ্ভাবন ও স্বল্পমূল্যের ভোগ্যপণ্যের প্রয়োজন, এবং (৩) বাংলাদেশ ও ভারতের মত উন্নয়নশীল দেশগুলোর বিশ্ববাণিজ্যে নতুন মাত্রা যোগ করার সুযোগ এসেছে। উল্লেখিত প্রতিটা ক্ষেত্রই আজকের বিশ্ব-অর্থনীতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। বলতে গেলে বিনিসূতার মালায় গাঁথা। শিল্পায়িত উন্নত বিশ্ব এবং উন্নয়নশীল দেশগুলো একে অন্যের পরিপূরক হিসাবে কাজ করবে নতুনভাবে নতুন বিশ্ব-অর্থনীতি বিনির্মাণে। সেখানে উন্নয়শীল দেশগুলোর অর্থনৈতিক পেশী অতটা শক্তিশালী না হলেও কর্মশক্তি এবং উদ্ভাবন শক্তির অভাব হওয়া উচিৎ নয়।

 

- সাবির মজুমদার  

 

ই-মেইল : sabir.majumder@comcast.net

 

ফ্রিমন্ট, ক্যালিফোর্নিয়া

আগস্ট ১৬, ২০০৯
 

মন্তব্য:
জনারণ্য   August 30, 2009
সম্পাদকীয়টি আগ্রহসহকারে পড়লাম। তবে আমি বুঝতে অপারগ বিশ্ববাণিজ্যের এই বিশাল মন্দায় বাংলাদেশ কিভাবে কিংবা কোন কোন খাতে ভূমিকা রাখতে পারে! এই বিষয়টি নিয়ে আরো বিশদ আলোচনা হলে আমার মত আরো অনেকের সুবিধা হতো। - জনারণ্য
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.