Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  প্রযুক্তি বন্ধন  ||  ৯ম বর্ষ ১০ম সংখ্যা মাঘ ১৪১৬ •  9th  year  10th  issue  Jan - Feb  2010 পুরনো সংখ্যা
ঢাকায় ইন্টেগ্রেটেড সার্কিট নির্মাণ প্রচেষ্টার অভিজ্ঞতা Download PDF version
 

প্রযুক্তি বন্ধন

 

ঢাকায় ইন্টেগ্রেটেড সার্কিট নির্মাণ প্রচেষ্টার অভিজ্ঞতা

মোহাম্মদ ইকবাল

 

আইডিয়াঃ মার্কিন দেশে অনেক দিন প্রযুক্তির ওপর কাজ করতে করতে আমার মনে হয়েছিল বাংলাদেশে উন্নত কোন ইলেকট্রনিক্স প্রজেক্ট নিয়ে যাওয়া সম্ভব কিনা। ভেবেছিলাম কোন ইন্টেগ্রেটেড সার্কিট (IC) প্রযুক্তিকে বাংলাদেশে নিয়ে যেতে পারলে সেই ধরনের একটা শিল্প-ধারণার প্রবর্তন করা যেতে পারে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে একটা ছোটখাট প্রজেক্ট নিয়ে গেলে এবং কিছু প্রকৌশলী শিক্ষার্থী ও বিশেষজ্ঞকে এই ব্যাপারে উৎসাহিত করতে পারলে, অনেক বিনিয়োগকারী এতে আগ্রহী হবেন এবং প্রজেক্টটা শেষ পর্যন্ত দাঁড়িয়ে যাবে।

সেমিকন্ডাকটর শিল্পে ফ্যাবলেস (Fabless) কোম্পানি বলে একটা কথা আছে। ফ্যাবলেস কোম্পানিগুলি মূলতঃ IC চিপের ডিজাইন নিয়ে পারদর্শী হয়। ফ্যাবলেস কোম্পানিগুলি তার প্রোডাক্ট মানুফ্যাকচারের জন্য আউটসর্সিং এর ওপর নির্ভর করে।  এইরকম একটি প্রডাক্ট হচ্ছে সিস্টেম-অন-এ-চিপ (SoC)। জটিল ও ব্যয়বহুল ফ্যাব্রিকেশন এবং হার্ডওয়্যার ছাড়াই, সফটওয়্যার ও অল্প খরচের যন্ত্র দিয়েই SoC ডিজাইনের বাস্তবায়ন সম্ভব। তবে প্রোডাক্টকে সাফল্যের সাথে বাজারজাত করার জন্য ইন্টালেকচুয়াল প্রপার্টি (IP) সম্পর্কে জানতে হবে যাতে প্রডাক্ট ডিজাইনে IPকে অন্তর্ভূক্ত করার সময় যেন কোন আইনগত (লিটিগেশন) বাধা না আসে।

সফলভাবে বিভিন্ন ভেন্ডরের সাথে কাজ করার জন্যেও অভিজ্ঞতার প্রয়োজন আছে। প্রতিটি ভেন্ডরের সাথে কাজ করার সময় প্রযুক্তি, গুণগত মান, ব্যবসা ও আইনগত দিকগুলি সম্পর্কে জানতে হবে। একটা মোটামুটি জটিল উদাহরণ দিই আধুনিক SoC একই সাথে বহু উচ্চ গতির সিরিয়াল ইন্টারফেস (যেমন PCI, USB এবং XAUI), মেমরি ইন্টারফেস (যেমন DDR), এবং CPUকে (যেমন ARM, MIPS এবং Tensilica) একীভূত বা ইন্টিগ্রেট করে। এনালগ IPর মধ্যে থাকতে পারে ADC, DAC, PLL, DLL এবং পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ব্লক। কমোডিটি IPর মধ্যে থাকতে পারে মেমরি, IO এবং স্ট্যান্ডার্ড সেল। এই ধরণের শিল্পে পেশাগত অভিজ্ঞতা ও যোগ্যতা গড়ে তুলতে হলে উপরোক্ত প্রতিটি পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান।

আমাদের উদ্দেশ্য ছিল একটা SoC ডিজাইন কেন্দ্র সৃষ্টি করা। প্রথম পর্যায়ে বিদ্যমান কোন ডিজাইনকে উন্নত করে অল্প খরচে (বা অজটিল প্রযুক্তি মাধ্যমে) তাকে ফ্যাব্রিকেট করা, অথবা সরাসরি কোন জনপ্রিয় বা দীর্ঘস্থায়ী প্রোডাক্টকে ফ্যাব্রিকেট করা। যেভাবেই হোক না কেন আমাদের ইচ্ছা ছিল একটি পুরোদস্তুর IC নির্মাণ কেন্দ্র সৃষ্টি।

কেন আমরা SoC বা Application-specific Integrated Circuit (ASIC) এর দিকে ঝুঁকছি? যুক্তরাষ্ট্র ও অনেক উন্নত দেশে পরিবেশ সংস্থাগুলোর (EPA, ইত্যাদি) নির্দেশ অনুযায়ী IC তৈরির সময় সৃষ্ট বিষাক্ত বর্জ্যকে সঠিকভাবে অপসারণ করতে হয়। এই প্রক্রিয়াটির জন্য উন্নত প্রকৌশল লাগে। যে কোন সবে-শুরু কোম্পানীর জন্য এটা একটা ব্যয়বহুল ব্যাপার। এইজন্য অনেক কোম্পানিই ফ্যাব্রিকেশনের কাজ অন্য দেশে আউটসোর্স করে যেখানে বর্জ্য অপসারণ তুলনামূলকভাবে সস্তা। আমার মনে হয় বাংলাদেশ এই সুযোগকে ব্যবহার করতে পারে।

 

IC ফ্যাব্রিকেট করতে হলে ল্যাবরেটরি বা ওয়ার্কশপ লাগবে। পরিসংখ্যান বলে এই ধরণের ল্যাবের ঘাটতি আছে এবং আগামী ১৫-২০ বছর এই ঘাটতি পূরণ করতে হলে ২০% বৃদ্ধিহারে ফ্যাব-লেস ল্যাব তৈরি করতে হবে। তবে বাংলাদেশের প্রযুক্তির উন্নতির জন্য ফ্যাব-লেস ল্যাবের যেমন দরকার আছে, তেমনই দরকার আছে IC বানানোর কারখানা। এর মধ্যে দিয়েই নতুন নতুন কারিগরি দল শিক্ষা লাভ করবে ও তারা নতুন শিল্প সৃষ্টি করবে। বিদেশের প্রোডাক্ট চাহিদা এবং ইন্টালেকচুয়াল প্রপার্টি সম্বন্ধে আমাদের জানতে হবে। পোষাক শিল্পে দক্ষতা অর্জনের জন্য বাংলাদেশকে যে ধরনের পদক্ষেপ নিতে হয়েছে, সিলিকন সেমিকন্ডাক্টর শিল্পের জন্যও সেরকম বলিষ্ঠ পদক্ষেপ নিতে হবে।

 

মার্কেট রিসার্চঃ আমরা বাংলাদেশে Accolade Fabless Design Inc নামে একটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করি। ICT ফান্ডিং এর জন্য বাংলাদেশ ব্যাঙ্কের কাছে একটা প্রপোজালও জমা দেয়া হয়। নভেম্বর ২০০২ থেকে অক্টোবর ২০০৫ পর্যন্ত IC ডিজাইনকে উন্নত করা এবং দেশে ম্যানুফাকচার করার জন্য আমরা বাজার নিয়ে গবেষনা করি (মার্কেট রিসার্চ)। যে সমস্ত কোম্পানি এই আলোচনায় অংশগ্রহণ করে তারা হচ্ছে Texas Instruments, SMC, PIC, Simi Valley Engineering এবং Intel । এর মধ্যে PIC মৌখিকভাবে রাজি হয়েছিল তাদের একটা LDO ডিভাইসকে পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করে আমাদের প্রতিষ্ঠানে ম্যানুফাকচার করতে। তাদের এই সিদ্ধান্ত আমাদের ল্যাব ও IC কারখানার জন্য ফান্ডিং সংগ্রহ করতে উৎসাহিত করে । আমরা একটা জায়গাও নির্দিষ্ট করি এবং যে সমস্ত ইকুইপমেন্ট লাগবে তার একটা তালিকা তৈরি করে ভেন্ডরদের মধ্যে বিতরণ করি। একই সাথে আমরা আরো মার্কেট রিসার্চ করতে থাকি।

 

২০০৫ সালের শেষ দিকে, ফান্ডিংএর জন্য অপেক্ষা করার সময়, আমি যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে আসি Intel সহ কিছু মেডিকাল ডিভাইস কোম্পানির সাথে কথা বলার জন্য। এই ধরনের প্রাথমিক কাজের সময় অর্থনৈতিক ও পারিবারিক কারণে আমাকে একটা কোম্পানিতে যোগ দিতে হল। তাছাড়া ২০০৭ সাল থেকে দেশের অস্থিত পরিবেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সরকারি প্রতিষ্ঠান সমূহ উৎসাহ দেখাচ্ছিল না। তাই, বলতে গেলে ব্যক্তিগত কারণে আপাততঃ আমি এই উদ্যোগ থেকে কিছুটা বিযুক্ত। আশা করছি অদূর ভবিষ্যতে ইতিমধ্যে নির্মিত ভিত্তিভূমির ওপর নির্ভর করে এই কাজটা বাংলাদেশে আবার শুরু করতে পারব।

 _____________________________________________________

মোহাম্মদ ইকবাল পেশায় ইলেক্ট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ার। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র নৌবাহিনীর একটি আর.এফ. ইঞ্জিনিয়ারিং প্রজেক্টের চিফ ইঞ্জিনিয়ার। এর আগে চিপ ডিজাইন ও ভ্যালিডেশন প্রজেক্টের লিড ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন।  

 

 

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.