Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  সাম্প্রতিক  ||  ৯ম বর্ষ ১০ম সংখ্যা মাঘ ১৪১৬ •  9th  year  10th  issue  Jan - Feb  2010 পুরনো সংখ্যা
সরকারের এক বছর ও ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ Download PDF version
 
     
 

সাম্প্রতিক

 

 

সরকারের এক বছর ও ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ

 

শুভ কিবরিয়া

            ২০০৭-২০০৮ সালের সেনানিয়ন্ত্রিত তত্ত্বাবধায়ক শাসন শেষে গণতান্ত্রিক সরকারের শাসনামলের প্রথম বছর পার হলোশাসক দল আওয়ামী লীগ, তাদের শুভানুধ্যায়ী, দলের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সরকার সমর্থক সকল মিডিয়ার মতে এই এক বছর সরকারের সফলতার বছরতাদের মতে ব্যর্থতা উপচে সাফল্যই জুটেছে এই এক বছরে সরকারের

            অন্যদিকে বিরোধী দল, সরকার সমালোচক মিডিয়ার মতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে

            যারা এই দুই প্রান্তিকের বাইরে থাকেন তারা সরকারের সাফল্য ও ব্যর্থতা উল্লেখ করেও এই এক বছরকে ভালোই বলতে চানসকল বাধা বিঘ্ন অতিক্রম করে গণতান্ত্রিক সরকার এ প্রথম বছরকে ভালোভাবেই পার করেছে এই হচ্ছে তাদের অভিমতকিছু কিছু ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্য যেমন আছে, তেমন ব্যর্থতাও ভর করেছে অনেক ক্ষেত্রেতবুও গণতান্ত্রিক যাত্রা পথে সরকার এগিয়েছে

২.

            সরকারের নিজের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ সরকার দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছেএ গরিষ্ঠতা তাদের জন্য বড় সমস্যাও বটেকেননা গরিষ্ঠতার জোরে ক্ষুদ্র বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্যদের পাত্তা না দিলেও তেমন কিছু আসে যায় নাসংখ্যালঘুর কমপ্লেক্স নিয়ে বিরোধী দল সরকারের এই মনোবৃত্তির সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সংসদ সদস্য হিসেবে সকল সুযোগ-সুবিধা নিয়েও সংসদে অনুপস্থিত থেকেছেবিরোধী দলের অনুপস্থিতি সংসদের বিতর্ককে ম্লান করলেও সরকারের কার্যক্রমে কোনো ব্যাঘাত ঘটায়নিবরং গরিষ্ঠতার জোরে নিজস্ব বিবেচনার সর্বোচ্চ জোর খাটিয়ে নির্বিঘ্নে শাসন কাজ চালাতে পেরেছে সরকারযার ফলাফল আমরা দেখেছি বিডিআর বিদ্রোহ ও পিলখানা হত্যাকান্ডের সেই কঠিন সময় উৎরানোর পদ্ধতি ও সরকারি কায়দায়সরকার নিজস্ব সিদ্ধান্তে, শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সরকার উৎখাতের সমস্ত চেষ্টাকে বিফল করে সেই বড় সংঘাতকে সামলেছেনবিরাজনীতিকরণের নতুন চেষ্টাকে ঠেকিয়েছেননির্বাচনে পরাজয়ের সমস্ত বেদনা নিয়ে বিরোধী দল চেয়েছে সরকার বেকায়দায় পড়ুকসংঘাত-সংঘর্ষ অনিবার্য হলে তা বরং নতুন কোনো সুযোগ এনে দিতে পারে এই বিবেচনায় বিরোধী দল ভেতরের বিরোধকে উসকে দিতে চেয়েছেশেষ পর্যন্ত সরকার তা হতে দেয়নি

            এই ঘটনার পর সেনাবাহিনীতে যে অনুরণ ঘটে তাও সামাল দেয়ার পর সরকার অনেকটাই আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠেবছর শেষে সেই আত্মবিশ্বাস তাদের কিছুটা উত্তেজিত এবং অসহিষ্ণুও করে তোলেজ্বালানি উপদেষ্টা ও প্রধানমন্ত্রীর পুত্র বিদেশি তেল-গ্যাস কোম্পানি শেভরনের কাছ থেকে উৎকোচ নিয়েছেন এ রকম অভিযোগ সংবাদপত্রে প্রকাশিত হলে, তা নিয়ে টিভি টক শোগুলো সরব হলে, সরকার মিডিয়ার ওর খবরদারি করতে সচেষ্ট হয়এক ধরনের মনস্তাত্ত্বিক চাপ তৈরির চেষ্টাও করেবছর শেষে সরকারের এই আগ্রাসী মানসিকতা দিয়েই বিচার করতে হবে আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার ক্রিয়া ও প্রতিক্রিয়া

৩.

            কৃষি খাতে সরকার অসম্ভব মনোযোগ দিয়েছেগ্রামীণ অর্থনীতিতে সরকারের এই উদ্যম সাংগঠনিকভাবে আওয়ামী লীগকে সুবিধা ও সমর্থন দেবেতবে, সংগঠন হিসেবে আওয়ামী লীগ এবং সরকারের দূরত্ব বেড়েছেমন্ত্রী ও ক্ষমতাবান নতুন গোষ্ঠী আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক হাল ধরেছেদূরত্বকে তা আরো বাড়িয়েছেস্থানীয় সরকারের বিষয়ে সরকারের ভ্রান্তনীতি উপজেলায় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যানদের মধ্যে দূরত্ব-সংঘাত বাড়িয়েছেদল হিসেবে এর নেতিবাচক প্রভাব ভোগ করতে হবে আওয়ামী লীগকেদলের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর অনুসারীদের চাইতে শেখ হাসিনার অনুসারীরাই শক্তিমান হয়েছে

            এই বিভাজন রেখা তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত সুবিস্তৃতঅন্যদিকে সরকারের মূল শক্তির উৎস তার আমলাতান্ত্রিক উপদেষ্টামন্ডলীপ্রধানমন্ত্রী নিজে নির্ভর করেন গোয়েন্দা সংস্থার ওপরজনগণ বা দলের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমগুলো এসব ক্ষমতাবান মাধ্যমের দ্বারা ব্লকড বা প্রতিবন্ধকতার শিকারতাই বর্তমান এক বছরের সফল প্রধানমন্ত্রীকে আগামী সময়গুলোতে অনেক জটিল সময় পার করতে হবে

            জনগণের প্রকৃত অনুভব বা মনোভাব বোঝার সুযোগগুলো চাটুকার আর স্তুতিকার দ্বারা রুদ্ধ হবেপ্রভাব ফেলবে গোয়েন্দা সংস্থাওআগামী বছরে সরকার প্রধানের সঙ্গে জনগণের দূরত্ব বাড়ার সম্ভাবনা তাই সুপ্রচুর

৪.

            নতুন বছরে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতিতে চীন-ভারত বৈরিতার মুখে পড়তে হবেপ্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারতমুখীন কূটনীতি চীন কীভাবে দেখে সেটাও খেয়াল রাখা দরকার১৯৭১ সালে ভারত-সোভিয়েত ঐক্য নীতি মুক্তিযুদ্ধে বিজয় আনলেও চীন-মার্কিন বিরোধিতা ১৯৭৫ সালে বড় বিপর্যয় ঘটাতে সক্ষম হয়বর্তমান বিশ্বের জটিল কূটনীতি, উপমহাদেশের সংঘাতময় রাজনীতি, জঙ্গিবাদ, আঞ্চলিক সন্ত্রাস, বিচ্ছিন্নতাবাদীদের কর্মকান্ড বিবেচনায় নিলে বর্তমান সরকারের দৃশ্যমান ভারতমুখীনতা দেশে, দেশের বাইরে বাংলাদেশকে কীভাবে চিত্রিত করে তা বলা মুশকিলতবে এ কথা ঠিক, দেশের মধ্যে সরকারকে বড়ভাবে ভারত বিরোধিতারপ্রচারণার মুখে পড়তে হবেদিল্লির প্রতি সরকার অনুগত- জাতীয়তাবাদী ও ইসলামপন্থী দলগুলোর এই প্রপাগান্ডা আওয়ামী লীগ কীভাবে মোকাবেলা করে সেটাও বিবেচ্য

ভারত-চীন সম্পর্ক, ভারত-আমেরিকার অদ্ভুত সম্পর্কের মধ্যে বাংলাদেশ কীভাবে ডিলকরে সেটাই দেখার বিষয়

অন্যদিকে মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে সরকারের গত এক বছরের কূটনীতি ব্যর্থএই নতুন বছর তাতে কি সাফল্য আনে সেটাও বড় চ্যালেঞ্জ

            পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আমলাতান্ত্রিক নেতৃত্বকে ঠেলে বর্তমান রাজনৈতিক নেতৃত্ব যদি বলীয়ান না হয়, তবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকান্ড এ বছর সরকারকে ভোগাবে

৫.

            বিরোধী দল এ বছর অনেক বেশি উদ্বিগ্নতার কারণ হবে সরকারের জন্যভেতরে ও বাইরে নানান রকম কর্মকান্ড দিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের সংঘাত প্রকাশ্য রূপ নেবেরাজপথে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়তে পারেবিশেষত জ্বালানি ইস্যু, ট্রানজিট ইস্যুতে রাজপথে ইসলামপন্থী দল, বিএনপি এবং বাম রাজনৈতিক দলগুলো সরকারকে দারুণ বেকায়দায় ফেলবেযুদ্ধাপরাধীদের বিচার, ’৭২-এর সংবিধানে ফেরা, সেকুলার শিক্ষানীতি বাস্তবায়ন, উগ্র ডানপন্থী দলগুলোকে মরিয়া করে তুলবেঅন্যদিকে বিডিআর ও সেনাতন্ত্রে পুনর্গঠনের ধাক্কা সরকার কতটা সামলে নিতে পারবে তাও বিবেচ্য

            মনে রাখতে হবে আওয়ামী লীগ একটি বুর্জোয়া রাজনৈতিক দলদলের প্রতিটি কর্মী, নেতা, সরকারের শাসনামলে নিজের বৈষয়িক উন্নতিকে গুরুত্ব দিচ্ছে এবং দেবেইতোমধ্যে তা লক্ষণীয়নতুন বছরে তা আরো বাড়বেউন্নয়ন কর্মকান্ডের ক্ষেত্রে এ বছরে ব্যাপক হারে টাকার ছাড় ঘটবেদলীয় নেতাকর্মীরা টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজির মাধ্যমে তাতে ভাগ বসাতে চাইবেএ আধিপত্য মহাজোটের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বকে বাড়াবেজানুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহেই রাজশাহীতে সরকার সমর্থক ছাত্রলীগের হাতে মহাজোট শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সমর্থক ছাত্র সংগঠন ছাত্রমৈত্রীর নেতা খুন হয়েছেএ রকম ঘটনা অনেক বেশি বাড়বে এ বছরে যা সরকারকে ক্রমশ অভ্যন্তরীণ বৈরিতার মুখে ঠেলবে

            এ বছর মার্চ-আগস্টে লোডশেডিং বাড়বেসেচে বিদ্যুৎ দেয়ার নাম করে শিল্প খাতসহ অন্যান্য খাতে সরকারকে বিদ্যুৎ ও গ্যাস রেশনিং করতে হবেএ জ্বালানি সঙ্কট জনগণকে অসহিষ্ণু করে তুলবেসরকার এ সঙ্কটকে ব্যবহার করে ভারতের সঙ্গে বিদ্যুৎ আমদানি-রপ্তানির চেষ্টা চালাবে

            বিরোধীরা একে বিদ্যুৎ ট্রানজিটঅভিহিত করে ভারত বিরোধিতার প্রচারণা সরব করে তুলবেঅন্যদিকে সরকার সঙ্কট কাটাতে সমুদ্রবক্ষে গ্যাস ইজারা দেয়ার জন্য উদগ্রীব হবেদেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে সরকার বিদেশি তেল-গ্যাস কোম্পানির স্বার্থ দেখছে- সরকারের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠবেরাজপথে আন্দোলন বাড়বেসরকার অসহিষ্ণু হয়ে তা দমন-পীড়নের চেষ্টা চালাবেতাতে পরিস্থিতি ভিন্ন রকম মোড় নিতে পারেসামরিক ও বেসামরিক আমলাতন্ত্রের যে অংশ সরকারের নেয়া নানা সিদ্ধান্তে ক্ষুদ্ধ, তারা এসব জনঅসহিষ্ণুতাকে কাজে লাগাতে চাইবেসে ক্ষেত্রে সরকারের বড় চ্যালেঞ্জ হবে এ পরিস্থিতিকে সর্বোচ্চ সার্থকতার সঙ্গে মোকাবেলা করা

৬.

            বঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফাঁসি কার্যকর হবার পর, এক ধরনের রাজনৈতিক পোলারাইজেশন বাড়বেসরকারের এ সাফল্য সরকারকে সাহসী করে তুলবেঅন্যদিকে আক্রান্ত হতে পারে এ ভেবে টার্গেট গ্রুপনিজেদের রক্ষা করতে মরিয়া হয়ে উঠবেযুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রক্রিয়া যদি সত্যি সত্যিই সরকার শুরু করে তবে এর বিপরীত ধাক্কাও সরকারকে চাপে ফেলবে

            সামরিক আমলাতন্ত্রে যে পুনর্গঠনে সরকার হাত দিয়েছে, তাতে প্রতিবেশী একটি দেশের প্রভাব বাড়ছে বলে ভেতরে ভেতরে নানান ক্ষুব্ধতা তৈরি হবেবিডিআর বিদ্রোহের বিচার, দশ ট্রাক অস্ত্র মামলা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার, ভারতের বিচ্ছিন্নতাবাদী দলগুলোকে বাংলাদেশ থেকে সমূলে উৎখাত- এ প্রবণতার সঙ্গে সামরিক আমলাতন্ত্রের মধ্যে বসে থাকা সুবিধা পাওয়া শক্তিমান একটি অংশের স্বার্থহানি ঘটবেসরকারকে এর প্রতিরোধ এবং সক্রিয়তায় মুখে পড়তে হবেএ সঙ্কট সরকার কীভাবে মোকাবেলা করবে তার ওপরেই নির্ভর করছে সরকারের আগামী দিনের সাফল্য

            সরকারের প্রধানমন্ত্রী সুস্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছেন বেসরকারি আমলাতন্ত্র প্রত্যাশামত গতিশীল হতে পারেনিএর একটি ভিন্ন দিকও রয়েছেবলা যায় সরকারের রাজনৈতিক নেতৃত্ব আমলাতন্ত্রকে সচল করতে ব্যর্থ হয়েছেরাজনৈতিক নেতৃত্ব যদি আমলাতান্ত্রিক নেতৃত্বের ওপরে উঠে তাকে চালাতে না পারে তবে সরকারের রাজনৈতিক কর্মসূচি, নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন সহজ হবে নাকঠিন হবে যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় রাজনৈতিক নির্দেশনা বাস্তবায়নও

     সুতরাং নতুন বছর জুড়ে সরকারের জন্য সেই বিপত্তি সরকারের মন্ত্রিসভাকে ভোগাবে

৭.

            ইতোমধ্যে বিরোধীদলীয় নেত্রী ইঙ্গিত দিয়েছেন জাতীয় স্বার্থ পরিপন্থি কিছু হলে, সরকারের চলার পথ ফুলের বদলে কাটা বিছিয়ে দেবেন তিনি

            এটি যথার্থই ইঙ্গিতবহজাতীয়তাবাদী রাজনীতির যারা সমর্থক, ভারত বিরোধিতাকে যারা রাজনীতিকরণ করেন সেই বড় গোষ্ঠীর মধ্যে ইসলামপন্থী দলগুলো আছেবামপন্থীদের অনেকেই আছেআওয়ামী লীগের ৭২-এর সংবিধানে ফেরা, সেক্যুলার শিক্ষা বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা তীব্রভাবে এই গোষ্ঠীর বিরোধিতার মুখে পড়বে

     সুতরাং ক্ষমতায় থাকা দল আওয়ামী লীগকে তা মোকাবেলা করতে হবেরাজনীতি দিয়ে মোকাবেলার পরিবর্তে সরকার যদি রুষ্টপথে, সহিংস মনোভাবে পুলিশ, রেব, গোয়েন্দা সংস্থার ওপর নির্ভরতা বাড়িয়ে চলতে চায়, তবে পথের কাঁটা তুলতে সরকারকে অনেক বেশি রিস্ক নিতে হবেসেই রিস্ককোন অর্জন আনবে তা বলা মুশকিল

            প্রথম বছরে সরকারের প্রধানমন্ত্রীসহ পুরো টিম, যারা সত্যিকার অর্থেই ক্ষমতাবান তারা বেশ আত্মবিশ্বাসী এবং পথের কাঁটা সরাতে যে কোনো পদক্ষেপ নিতেই দৃঢ় প্রতিজ্ঞএ গ্রুপটি সংখ্যায় ছোট, ক্ষমতায় বড়এদের নিবিড়তা রাজনৈতিক শক্তির চাইতে প্রশাসনিক শক্তিতেএই দৃষ্টিভঙ্গির ফলে মিডিয়া, সরকার বিরোধী মনোভাবাপন্ন সুশীল সমাজের সঙ্গে বড় ধরনের বিরোধ ঘটতে পারে নতুন বছরে সরকারের ক্ষমতাবান অংশেরজনগণের ওপর নির্ভরতা না বাড়ালে, প্রত্যেকটি বিপত্তি বড় বিপদের জন্ম দেবে

            পথের কাঁটা ফুল হবে না বিপদ হবে তা নির্ভর করবে নতুন বছরে সরকার কতটা রাজনৈতিক প্রজ্ঞা এবং রাজনীতিনির্ভর দৃষ্টিভঙ্গিতে দেশ চালান তার ওপর

ঢাকা

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.