Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  মূল রচনাবলীঃ  ||  ৯ম বর্ষ ১১তম সংখ্যা ফাল্গুন ১৪১৬ •  9th  year  11th  issue  Feb - Mar  2010 পুরনো সংখ্যা
ওবামার স্বাস্থ্য নীতি Download PDF version
 

ওবামা ও মার্কিন রাজনীতি

ওবামার স্বাস্থ্য নীতি

ওয়াহেদ হোসেনী

 

আজকের আমেরিকার উন্নয়ন শুরু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর। যুদ্ধের সময়, ইউরোপে আমেরিকান সেনাপতি আইজেনহাওয়ার গিয়ে উঠেছেন হোয়াইট হাউসে। যুদ্ধের গরমে তখনও তাঁর রক্ত টগবগ করছে। যুদ্ধ পরিচালনা ও জয়ের সময়সীমা তিনি যেভাবে হিসাব কষেছিলেন, তার চাইতে অনেক অনেক কম সময়ে কাম ফতে হয়ে যায়। তাঁর বাহিনী একবার জার্মানী প্রবেশ করলে, তারা তাঁর হিসাবের অনেক আগে আগে দ্রুত এগিয়ে যেতে থাকে, কারণ জার্মানীর অটোভ্যান জার্মানীর মহাসড়ক ব্যবস্থা। প্রেসিডেন্ট হয়ে আইজেনহাওয়ার তাঁর সে শিক্ষা আমেরিকার উন্নয়নে প্রয়োগ করতে চাইলেন। আইজেনহাওয়ার মনে করলেন, যান বাহন দ্রুতয়ান করতে পারলে উন্নতিও হবে দ্রুতায়িত। এক বাক্যে সবাই সে কথা মেনে নিলেও ঝড় উঠলো ভীষণ জোরে। সবার এক প্রশ্ন, পয়সা আসবে কোথা থেকে? আজকের মত, তখনকার দিনে হুট করে ঋণের পরিমান বাড়িয়ে দেওয়ার রেওয়াজ শুরু হয়নি। তবু আইজেনহাওয়ার হাল ছাড়েননি, ‘কুইট’ করেননি। আইজেনহাওয়ারের চাইতে অনেক বেশী অর্থ সঙ্কটে পড়েও নতুন যুগের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা শুধু সিনেট আর হাউজের সামনে নয়, সারা আমেরিকার সামনে দাঁড়িয়ে বললেন, ‘আই ডোন্ট কুইট’। আমেরিকান স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সংস্কার করতে গিয়ে তাঁর গাড়ী যে কাদায় আটকিয়ে গেছে, তারই উল্লেখ করতে গিয়ে ওবামা এই কথা বলেন।

ওবামার আর সমস্ত কর্মসূচি বাদ দিয়ে তাঁর স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সংস্কারের নীতি নিয়েই আলোচনা করা যাক। রোগাক্রান্ত হলে, আধুনিক, বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি প্রয়োগ করে চিকিৎসা করে, রোগ সারাতে আমেরিকার জুড়ি নেই। কিন্তু চিকিৎসা করতে গিয়ে যে ব্যয়ের বোঝা ঘাড়ে চাপে, তা সামলানোর ক্ষমতা আছে কজনের? অর্থাৎ  চিকিৎসা করানোর ব্যয়বহুলতার দিক দিয়েও আমেরিকার জুড়ি নেই।

ওয়াশিংটন পোষ্ট পত্রিকার T. R. Reid লন্ডন, টোকিও, দিল্লী প্রভৃতি শহরে পত্রিকার ব্যুরো চীফ হয়ে কাজ করে করে ঐ সব দেশ চিকিৎসা ব্যবস্থা সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে ওঠেন। তিনি গবেষণা করতে শুরু করেন। রীড World Health Organization-এর মাধ্যমে অন্যান্য দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে ঘাটাঘাটি করে একটা বই লেখেন, The Healing Of America. বইটার ভেতরের মলাটটা পড়লে মাথা ঘুরে যাবে। বইটি সম্পর্কে বলতে গিয়ে প্রথম বাক্যেই রীড বলেন, ন্যায়-পরায়ণতার দিক দিয়ে আমেরিকান চিকিৎসা ব্যবস্থা সারা পৃথিবীর মধ্যে ৫৪ নম্বর।  এই ৫৪ নম্বর স্থানটি হচ্ছে বাংলাদেশ ও মালদ্বীপের ঠিক নিচে আর চাদ ও রোয়েন্ডার ঠিক ওপরে। স্তম্ভিত হয়ে যাওয়ার কথা। রীড তার বই শুরু করেন নিকি হোয়াইট নামে সুন্দরী, প্রাণোচ্ছল, তরুণী, সাধারণ এক আমেরিকানের কথা দিয়ে। রীড বলেন, নিকি যদি বিশ্বের অন্য কোন উন্নত দেশ যেমন জাপান, জার্মানী, ফ্রান্স, ক্যানাডার নাগরিক হত, তবে সে আজও এই পৃথিবীতে হেসেখেলে বেড়াতে পারতো। কিন্তু মৃত্যুর খিড়কি দুয়ার দিয়ে বেরিয়ে গিয়ে নিকি পৃথিবীকে বিদায় জানিয়েছে, কারণ সে ছিল আমেরিকান, সাধারণ আমেরিকান নাগরিক। সাধারণ যে কোন আমেরিকানের মত সে এমনই বিত্তের অধিকারী ছিল যে নিকি ছিল ওয়েলফেয়ার পাওয়ার আওতার বাইরে, অথচ তার এমন অর্থ ছিল না যে সে টাকা খরচ করে তার lupus রোগের চিকিৎসা করায়। আর যেহেতু তার রোগ দেখা দিয়েছে, অতএব কোন বীমা কোম্পানী তার স্বাস্থ্য বীমা করলো না। এতো গেল নিকির কথা।

এ বছর পনেরো লক্ষ আমেরিকান দেউলিয়া ঘোষণা করবেন। এ কথা অবশ্যই সত্য যে এদের মধ্যে অনেকেই বেপারোয়া ব্যয়, নির্বুদ্ধিতা বা অন্য কোন কারণে দেউলিয়া হবেন। ২০০৭ সন শেষ হওয়ার পাঁচ বছরের গড় পড়তা হিসাবে দেখা যায় যে পনেরো লক্ষ মানুষের মধ্যে শতকরা ৬০ জন দেউলিয়া হন, চিকিৎসা ব্যয়ভার বহন করতে অপারগ হয়ে। এদের মধ্যে সবাই উচ্চ শিক্ষিত, চাকুরে, মধ্যবিত্ত এবং বাড়ীর মালিক।  হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুলের  শিক্ষক, ডাক্তার স্টফলার উলহ্যন্ডলার, দি আমেরিকান জার্নাল অব মেডিসিনে এক সাক্ষাতকারে বলেন, আপনি যদি বীল গেট কিংবা ওয়ারেন বাফেট না হন, আর আপনি যদি মারাত্মক রোগে আক্রান্ত হন, তবে আপনি নির্ঘাত দেউলিয়া হবেন। তার কারণ খরচের একটা সীমারেখা পার হলেই বীমা কোম্পানী আপনাকে রোগের খরচ দেওয়া বন্ধ করে দেবে। তার কারণ বীমা কোম্পানীদের একটা সীমারেখা আছে যার বেশী তারা পয়সা  দেবে না।

আপনি সুস্থ, সবল, জোয়ান মানুষ হলে আপনার কোন ভাবনা নেই। কিন্তু জীবনতো শুধু যৌবনের মধ্যে আটকে থাকে না। মানুষ তো বৃদ্ধ হয়, রোগাক্রান্ত হয়। তার যত্ন নিতে হয়। যত্ন নিতে খরচ লাগে। যে সব কোম্পানী স্বাস্থ্য বীমার অংশবিশেষ বহন করে, তাদের চাকুরেরা কিছুটা রেহাই পায়। কিন্তু যেসব কোম্পানী বীমা খরচের অংশ বহন করে না, বা যাদের চাকরী নাই, বা যারা অবসর প্রাপ্ত তাদের অবস্থা শোচনীয়। তারা শুধু প্রার্থনা করতে থাকে যাতে অসুখে না পড়ি। চিকিৎসা খরচ এমনিভাবে মানুষের আয়ত্তের বাইরে চলে গেছে।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর নির্বাচনী ইস্তেহারে যে সব অংগীকার করেন তার মধ্যে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সংস্কার ছিল অন্যতম প্রধান অংগীকার। প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েই তিনি যেন ঝাঁপিয়ে পড়েন তাঁর অঙ্গীকার পুরণ করতে। তিনি যে সব ব্যবস্থা নিতে চাইলেন তাতে বীমা কোম্পনীগুলোর লাভের সাগর একেবারে শুকিয়ে না গেলেও কিছুটা কমতি নিশ্চিয়ই হতো। সঙ্গে সঙ্গে কোম্পানীগুলোর নামী দামী লবীষ্টদের যা করার করতে শুরু করলো। জনপ্রতিনিধিদের লোভ দেখিয়ে, ভয় দেখিয়ে, জনগণকে বিভ্রান্ত করে ওবামার প্রস্তাবিত প্রথম ও প্রধান সংস্কার, Public Optionকে ঘায়েল করলো। পাবলিক অপশাসনের মাধ্যমে, বৃদ্ধ, যুবক, চকুরীজীবি, বেকার সবাই বীমা ক্রয় করতে পারতো, ক্রয় করার সামর্থ থাকতো। কিছু জনপ্রতিনিধি বীমা কোম্পানীগুলোর খপ্পরে পড়ে, তাদের সুরে সুর মেলালেন। আর তাদের কৌশল ও অপপ্রচারে জনগণও ভীত হয়ে উঠলো। অপবাদ ও অপপ্রচারের ফলে ওবামার সমর্থকরাও ভড়কে গিয়ে সম্পর্ক ছিন্ন না করেও দূরত্ব বজায় রাখতে শুরু করলেন। তাদের ভয়, পরবর্তী নির্বাচনে তারা নির্ঘাত ঘায়েল হয়ে যাবেন। ইতিমধ্যে ভার্জিনিয়া, ম্যাসাচুসেটসে তার ফল দেখা দিলো। সংখ্যালঘিষ্ঠ হয়েও রিপাবলিকানরা এখন দাবী করতে শুরু করেছে ওবামার স্বাস্থ্য নীতি জলাঞ্জলী দিয়ে আবার নতুন করে তাদের মনমত স্বাস্থ্য সংস্কার শুরু করার। ওবামা তাঁর সংস্কারের নীতিগুলো কাটছাঁট করে, এই রচনার সময় পর্যন্ত যেগুলো টিকিয়ে রেখেছেন সেগুলো হলো :

1.                 No Discrimination for Pre-Existing Condition

আগে থেকে কোন রোগ থাকলে, বীমা কম্পানী বীমা করতে কোন বৈষম্য করবে না।

2.                 No Exorbitant Out-of-Pocket Expenses, Deductibles or Co-pays

পকেট থকে দেয়, ডিডাক্টিবল কিংবা কো-পে মাত্রাধিক হোতে পারবে না।

3.                 No Cost sharing for Preventive Care

রোগ রক্ষামূলক সকল চিকিৎসাভার বীমা কোম্পানী বহন করবে।

4.                 No Dropping of Coverage for Seriousness

মারাত্মক রোগ দেখা দিলে বীমা নাকচ করা চলবে না।

5.                 No Gender Discrimination

বীমাকরণ ক্ষেত্রে নারী পুরুষ বলে কোন বৈষম্য করা যাবে না।

6.                 No Annual or Lifetime Caps on Coverage

বাৎসরিক বা জীবনে কোন খরচসীমা থাকবে না।

7.                 Extended Coverage for Young Adults

পরিবারের নির্ভরশীল সন্তা্নসন্ততিদের (২৬ বছর বয়স পর্যন্ত) বীমা করা যাবে।

8.                 Guaranteed Insurance Renewal

বীমা নবায়ন নিশ্চিত থাকবে।

 

এই রচনা পর্যন্ত উপরোক্ত আটটি নীতি ওবামা সাহেব এখন আটকে ধরে রেখেছেন। কিন্তু বীমা কোম্পানীগুলোর শক্তিশালী লবীষ্টদের আক্রমন সমানে চলেছে। শেষ পর্যন্ত কোনটি টেকে কোনটি যায় তা ওবামা নিজেও হলফ করে বলতে পারবেন না। আইজেনহাওয়ার কুইট করেননি, তাঁর স্বপ্ন সফল হয়েছিল, ওবামা কি রাখতে পারবেন তাঁর ‘আই ডোন্ট কুইট’ কথা?

 

ওয়াশিংটন ডিসি

ফেন্রুয়ারী ৬, ২০১০

ই-মেইল : elderhossaini@gmail.com  

       

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.