Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  অদ্ভুত উটের পিঠে  ||  ৯ম বর্ষ ১১তম সংখ্যা ফাল্গুন ১৪১৬ •  9th  year  11th  issue  Feb - Mar  2010 পুরনো সংখ্যা
অদ্ভুত উটের পিঠে Download PDF version
 

অদ্ভুত উটের পিঠে

এহসান নাজিম

 

বাংলাদেশে উট নাই। তবু কি করে যেন আমাদের পড়শী একটা উট জোগাড় করে তার পিঠে চড়ে সমগ্র স্বদেশ ভ্রমণ করতে থাকেন আর ঘটে যাওয়া সব অদ্ভুত কান্ড আমাদের শোনাতে চান ছোট করে-

 

ফার্স্ট হয়েছি!

দেশের মোটামুটি সবগুলো পত্রিকাই তন্ন তন্ন করে খুঁজেও মন্ত্রীদের কাজের মূল্যায়নের মেধাক্রমের তালিকাটা পেলোনা পড়শী'অথচ শুনতে পেলো ফরিদপুরের লোকজ সাংস্কৃতিক উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে শ্রম, কর্মসংস্থান ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী বললেন, বর্তমান মহাজোট সরকার ৬ জানুয়ারী ১ বছর পূর্ণ করেছে। ঐদিন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সব মন্ত্রীর ১ বছরের কাজের মূল্যায়ন করা হয়েছে। এ মূল্যায়নে আমি ফার্স্ট হয়েছি।' জনসভায় কাঁচা রাস্তা পাকা, রাজেন্দ্র কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর সহ নানা আশ্বাস দেবার পর মন্ত্রী বললেন, ফরিদপুরে আমার অবর্তমানে আমার অনুজ খন্দকার মহতাশেম হোসেন আমার পক্ষে দায়িত্ব পালন করবেন। সে জনগণের সেবা করার জন্য স্ত্রী ও ছেলেমেয়েকে ঢাকায় রেখে ফরিদপুরে পড়ে আছেন শুধু ফরিদপুরবাসীকে সাহায্য করার জন্য।' পড়শী' ভেবে পেলোনা মন্ত্রীদের মধ্যে ফার্স্ট হবার জন্যই নিজে নির্বাচিত প্রতিনিধি হয়েও জনগণকে দেখার জন্য অনির্বাচিত ভাইকে গদীনাশীন করে যেতে হলো কিনা?

মিথ্যা হলফনামা

উত্তরার প্লট পাবার ব্যাপারে রাজউকের শর্ত ছিলো, ঢাকা শহরে আবেদনকারীর নিজ ও স্ত্রীর নামে প্লট বা ফ্ল্যাট থাকা চলবেনা। কিন্তু মন্ত্রী,সাংসদ ও সমমর্যাদায় যারা আবেদন করেছেন, তাদের সবাইকে বিশেষ বিবেচনায় প্লট বরাদ্দ দিয়েছে রাজউক। পড়শী'দেখলো উত্তরায় যে ৮৩ জন সাংসদ প্লট পেয়েছেন, তাদের মধ্যে ১৮ জনের নিজের অথবা স্ত্রীর নামে ঢাকা শহরে জমি, বাড়ি বা ফ্ল্যাট আছে। তাদের মধ্যে ১৪ জন আওয়ামী লীগের,২ জন জাপার, ১ জন বিএনপির ও ১ জন জাসদের। আরও মজার ব্যাপার হচ্ছে তারা বিভিন্ন যুক্তি দিয়ে তা 'হালাল' করার পক্ষে সাফাই গাইছেন। আইন প্রতিমন্ত্রী যিনি লালবাগে পৈতৃক বাড়ির এক তৃতীয়াংশের মালিক এবং মিরপুরে যার ৪ কাঠা জমিও আছে, তিনি বললেন,পৈতৃক বাড়িটি ছোট এবং তাতে তিন ভায়ের সমান অংশীদার। আর মিরপুরের জমিটি তিন মেয়েকে দিয়েছি। এবার বলেন, আমার কি কিছু আছে? পড়শী' ভাবলো- আহারে জনগণের ভালবাসা ছাড়া কিছুই নাই! তাই জনপ্রতিনিধি হয়েও মিথ্যা হলফনামা দিতে তাদের একটুও দ্বিধা হলোনা। যারা আইন প্রনয়ন করবেন তারা যদি মিথ্যা হলফনামা দিয়ে এভাবে সুযোগ নেন, এর চেয়ে বড় প্রহসন আর কি হতে পারে, এটি নৈতিক স্খলন ও দন্ডনীয় অপরাধ। জাতির সাথে প্রতারণা। 'পড়শী' কি একটু বেশীই ভেবে ফেলছে? এমনতো সব সরকারের সময়েই হয়। এ ব্যাপারে সব এমপিরাই ঐক্যবদ্ধ।
বয়ান!

যেতে যেতে পড়শী'থমকে দাড়িয়ে গেলো। মনে হচ্ছে বয়ান হচ্ছে! 'আপনাদের রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করতে চাইনা। তবে খোদা না করুক, যদি স্বাধীনতার উপর আঘাত আসে, নাগরিক হিসাবে চুপ করে থাকা যাবেনা। যার যার অবস্থান থেকে যেকোন ভূমিকা পালন করতে হবে।' পড়শী' দেখতে পেলো- জামাতের শ্রমিক সংগঠনের সম্মেলনে নিজামী মাওলানা কথাগুলো বলছে। আইনমন্ত্রীর সামপ্রতিক বক্তব্য, আদালত পঞ্চম সংশোধনী বাতিল করলে, রাজনৈতিক কারণে ধর্মকে ব্যবহার করা যাবেনা'- এর জবাবে নিজামী বললেন- কেউ যদি এ নির্দেশ দেয়ও কলেমায় বিশ্বাসীদের পক্ষে তা মানা সম্ভব নয়।' ভারতের সাথে করা চুক্তিকে ভাঙা রেকর্ডের মতো কিছু না বুঝেই নিঃস্বার্থ আত্মসমর্পণ ' ও বললো। পড়শী নিদারুণ কৌতুক অনুভব করলো যখন সাইদী বললো, বর্তমান সরকার গনেশের মতো। তাদের দেহটা আওয়ামী লীগের, মাথাটা বামপন্থীদের।'

উন্নত করতে চাই!

এই ধরনের সংবাদে এতদিনে পড়শী'র চোখ সয়ে যাওয়া উচিত ছিলো। তবুও কেন যে অসহায় বোধ করেন! পড়শী' দেখলো নৌপরিবহন সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির জন সহ মোট ১৭ জন ৫ দেশের ৭টি বন্দর পরিদর্শনে যাবে। এরমধ্যে ১২ জনের ব্যায় বাবদ ৫০ লাখ টাকা বন্দর কর্তৃপক্ষ দেবে। অন্য ৫ জন ব্যবসায়ী তারা যাবেন নিজ খরচে। জানা গেছে বন্দরের অর্থে বিদেশ সফরের কোন বিধান নেই, শুধু প্রশিক্ষণের কাজে কর্মকর্তারা যেতে পারবেন। এর আগেও বিভিন্ন সরকারের আমলে এভাবে বন্দরের টাকায় বিদেশ সফর করার পর কর্মকর্তারা হয় বদলী হয়েছেন অথবা অবসরে গেছেন। এ কারণে অর্থ ব্যয়ের কোন সুফল পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে সফরে যাওয়া স্বয়ং মন্ত্রী শাহজাহান খান বললো, 'আমরা আরো উন্নত কিছু করতে চাই। সেজন্যেই বন্দরের অর্থে এ সফরে যাচ্ছি।' সফরে মন্ত্রী ও সংসদীয় কমিটির ব্যক্তিগত সহকারী কিংবা মন্ত্রনালয়ের যুগ্নসচিব, উপসচিবের কাজ কি জানতে চাইলে মন্ত্রী বললো, 'সেখানে অনেক লেখালেখির কাজ করতে হবে। সেজন্য তাদের নেয়া হচ্ছে।' তাতো বটেই, লিখতে পারে এমন লোকজন তো সাথে নিতেই হবে!

সাকার কথা!

চাঁদপুর যাবার সময় পড়শী' দেখলো সাঁকা চৌধুরী বলছেন, 'শেখ মুজিব হত্যার রায় কার্যকর করে আওয়ামী লীগ তাদের রাজনৈতিক এজেন্ডাই বাস্তবায়ন করছে। মুজিব হত্যার রায় যেমন হয়েছে, তেমনি আমার বাবার হত্যাকান্ডেরও বিচার করতে হবে।' কিন্তু পড়শী' তো জানে এবং সবাইও জানে, সাকার বাবা ৭৩-এ জেলে স্বাভাবিকভাবে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছে। সেসময় 'ফকা' চৌধুরীকে জেলে না রাখলে জনগণতো এমনিতেই মেরে ফেলতো। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে সাকা বললো, শেখ মুজিব হত্যা মামলায় ৫ জনকে ফাঁসি দিলেন, অথচ এদের নেপথ্যে যারা ছিলেন তাদের বিচার করছেন না কেন।' সাকা বললো, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট থেকে নভেম্বর পর্যন্ত যে সরকার ছিলো, অনেক আওয়ামী লীগ নেতা তখন সেই সরকারের ঘনিষ্ঠ ছিলো। তারা এখন সরকারে আছেন, আবার কেউ কেউ উপদেষ্টাও। তাই প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার ভয় সেখানেই।' যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবী (পড়শী কৌতুক অনুভব করলো) সর্মথন করে সাকা বললো,বর্তমান সরকার রাজাকারের তালিকা প্রস্তুত করার যে উদ্যোগ নিয়েছে তা একটি ভালো পদক্ষেপ। তবে এখনতো তারা মুক্তিযোদ্ধা ও রাজাকারদেরও তালিকা প্রস্তুত করছে। বিষয়টি না জানি এমন হয়, রাজাকারদের তালিকা মুক্তিযোদ্ধাদের চেয়ে বেশী বড় হয়ে যায়।' পড়শী' জানে হৃদয়ে যাদের স্বদেশ, তাদের সংখ্যা অনেক অনেক বড় এবং তারাই আজীবন জয়ী।
পোর্টল্যান্ড
, অরিগন
ঘটনাকালঃ  জানুয়ারী
,২০১০

 

মন্তব্য:
Enamul   February 24, 2010
এবারের লেখাটা আগের মতই গতিশীল হয়েছে. তবে যাদের প্রয়োজন তারা মনে হয় এইসব লেখা পড়ে না...........
Md. Asaduzzaman   February 20, 2010
dosto valo laglo tor lekha pore... valo thakish !
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.