Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  প্রযুক্তি বন্ধন  ||  ৯ম বর্ষ ১১তম সংখ্যা ফাল্গুন ১৪১৬ •  9th  year  11th  issue  Feb - Mar  2010 পুরনো সংখ্যা
প্রযুক্তির টুকরো খবর Download PDF version
 

প্রযুক্তি বন্ধন

প্রযুক্তির টুকরো খবর

মোহাম্মদ কাওছার উদ্দীন

বাংলা সাহিত্যের ডিজিটাল বুক

বিশ্ব সাহিত্যের এক অনুপম অংশ বাংলা সাহিত্য। চর্যাপদ থেকে আধুনিক বাংলা সাহিত্যের এই হাজার বছরের রত্নভান্ডার সত্যিই ঈর্ষণীয়। এ বিশাল ভান্ডারকে এদেশের মানুষের হাতের নাগালের মধ্যে এনে দিতে স্বনামধন্য কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে একটি প্রকল্প নেয়া হয়েছে। বাংলা বিজয় কিবোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা আনন্দ কম্পিউটার্স, সুদীর্ঘ পঞ্চাশ বছরের প্রকাশনা জগতের অভিজ্ঞতালব্ধ চলন্তিকা বইঘর, বিশ্বখ্যাত কম্পিউটার নির্মাতা এইচপির বিজনেস পার্টনার ডাটা সলিউশন্স এবং গ্রাফিক্স, ডিজিটাইজেশন ও সফ্টওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কম্পিউটার গ্রাফিক্স এন্ড ডিজাইন লিমিটেডের যৌথ প্রয়াস আনন্দ চলন্তিকা লিমিটেড। আনন্দ চলন্তিকা লিমিটেডের ডিজিটাল বুক প্রকল্পটির সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন আনন্দ কম্পিউটার্সের স্বত্বাধিকারী ও বিজয় কীবোর্ড প্রণেতা জনাব মোস্তফা জব্বার।

বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম আনন্দ চলন্তিকা লিমিটেড উদ্যোগ নিয়েছে বাংলা ভাষাভাষী সবার কাছে ডিজিটাল ফর্মে অত্যন্ত সহজলভ্য করে বাংলা সাহিত্যের রত্নভান্ডারটিকে উপস্থাপন করতে। এটাকে নামকরণ করা হয়েছে ডিজিটাল বুক। বাংলা একাডেমীর বইমেলার প্রাক্কালে আনন্দ চলন্তিকা লিমিটেড প্রকাশ করেছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের যাবতীয় রচনাবলী, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচনাবলী, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচনাবলী, জীবনানন্দ দাশ রচনাবলী এবং সুকান্ত ভট্টাচার্যের রচনাবলীর ডিজিটাল বুক। ডিজিটাল বুকের প্রথম সংস্করণটিতে শুধুমাত্র টেকষ্ট আকারে রচনাবলীগুলোকে প্রকাশ করা হয়েছে যা হতে যেকোন সময় প্রয়োজনীয় অংশ প্রিন্ট নেয়া যাবে। এমনকি নিজের কম্পিউটারে কপি করেও যেকোন অংশ পড়া যাবে।

বাংলা একাডেমী আয়োজিত একুশের বইমেলা ২০১০-এ বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি ৪২৫ ও ৪২৬ নম্বর স্টলে (মেলার মূল গেটের বিপরীতে) বিশেষ ছাড়কৃত মূল্যে মাত্র ৪০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে বাংলা সাহিত্যের পাঁচ মহাতারকার রচনাবলীর ডিজিটাল বুক।

এ প্রসঙ্গে মোস্তফা জব্বার জানান তাদের এ প্রকল্পের পরবর্তীতে প্রকাশনায় থাকছে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর রচনাবলী, মাইকেল মধুসুদন দত্ত রচনাবলী, সুকুমার রচনাবলী, উপেন্দ্রকিশোর রায় রচনাবলী, চর্যাপদ, ময়মনসিংহ গীতিকা, আলাওল রচনাবলী, মীর মোশাররফ হোসেন রচনাবলীসহ আরো গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু লেখকের রচনাবলী। আধুনিক প্রজন্মের লেখকরাও চাইলে তাঁদের রচনাবলীর ডিজিটাল বুক বের করতে পারবেন এ প্রতিষ্ঠানের সহায়তায়।

গাজীপুরে কম্পিউটার ভিত্তিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

কর্মমুখী কম্পিউটার শিক্ষাদানের প্রত্যয় নিয়ে গাজীপুরে মডেল ইনস্টিটিউটের যাত্রা শুরু হয়েছে। গতকাল ১৮ জানুয়ারী বিকেলে শহরের হাবিব উল্যাহ সরণীতে প্রতিষ্ঠানটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে।

মডেল ইনস্টিটিউটের ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল উদ্দিন তালুকদার, উদ্বোধন ঘোষণা করেন ভাষা সৈনিক ও শান্ত-মরিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজির চারুকলা বিভাগের প্রধান মোস্তাক রসুল সিরাজী। মডেল ইনস্টিটিউটের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট আসাদুল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মডেল ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক জুলীয়াস চৌধুরী, নজরুল ইসলাম প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন মডেল ইনস্টিটিউটের পরিচালক আশজাদ রসুল সিরাজী।

অনুষ্ঠানে জানানো হয় কম্পিউটার সংশ্লিষ্ট সর্বশেষ ভার্সনের মানসম্পন্ন শিক্ষা সহজবোধ্যভাবে পরিচালনার লক্ষ্য নিয়ে মডেল ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। এ প্রতিষ্ঠানে চাকরি উপযোগী কোর্স কারিকুলাম পরিচালনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য স্বল্প কোর্স ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। তারপরও মহিলারা সব সময় ২০% ছাড় পাবেন এবং অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীরা সব সময় ৫০% ছাড় পাবেন।

উদ্বোধনী বক্তৃতায় ভাষা সৈনিক মোস্তাক রসুল সিরাজী বলেন, কম্পিউটার এবং এর অনুষঙ্গগুলো মানুষের অনেক কাজকে সহজ করে দিয়েছে। ফলে জীবনযাত্রায় গতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। এই গতি উন্নয়নের। প্রযুক্তির উৎকর্ষের সঙ্গে চলতে হলে কম্পিউটার শিক্ষা অনস্বীকার্য। এদেশের অনেক মানুষের ইংরেজিভীতি রয়েছে। এ কারণে বাংলাদেশে কম্পিউটারের ব্যবহার আশানুরূপ বাড়ছে না।

তিনি বলেন, শুরুর সময় থেকে কম্পিউটারের ব্যবহার ইংরেজি ভাষায় হলেও বিভিন্ন দেশে মাতৃভাষায় কম্পিউটারের ব্যবহার বেড়েছে। উন্নত দেশগুলোতে মাতৃভাষায় কম্পিউটার ব্যবহার সবচেয়ে বেশি। উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে মাতৃভাষায় কম্পিউটার ব্যবহারে সবচেয়ে এগিয়ে আছে সার্কভূক্ত দেশ ভুটান। প্রতিটি দেশই মাতৃভাষায় কম্পিউটার ব্যবহার করে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশেও মাতৃভাষা বাংলায় কম্পিউটারের ব্যবহার বাড়ানো প্রয়োজন।

ভাষা সৈনিক আরো বলেন, বিশ্বজুড়ে লিন্যাক্স ভিত্তিক মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহার বেড়েছে। মুক্ত সফটওয়্যারগুলো বিনা মূল্যেই পাওয়া যায়। বাংলাদেশে মুক্ত সফটওয়্যারের ব্যবহার বাড়ানো গেলে কপিরাইট লঙ্ঘনের দায়ে পড়তে হবে না একই সঙ্গে এদেশের বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয় হবে।

তিনি বলেন, অল্প কিছু দিন আগে মাইক্রোসফট করপোরেশন উইন্ডোজ এক্সপি এবং অফিস এক্সপি বাংলায় ছেড়েছে। এসব সফটওয়্যার কিনতে অনেক টাকা লাগে। আমাদের দেশের তরুণদের উন্নয়নকৃত মুক্ত সফটওয়্যার ভিত্তিক উবুন্টু নামে সম্পূর্ণ বাংলায় কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম বিনামূল্যেই পাওয়া যায়। তিনি এর ব্যবহার বাড়ানোর গুরুত্বারোপ করেন।

ভাষা সৈনিক মোস্তাক রসুল সিরাজী বলেন, কম্পিউটারে বাংলা ভাষার অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ব্যবহার তৃণমূল পর্যায়ে পৌঁছে দেয়া সম্ভব। বাংলাদেশে মুক্ত সফটওয়্যার এবং বাংলা ভাষায় কম্পিউটারের ব্যবহার বাড়াতে সরকারি উদ্যোগ প্রয়োজন। এতে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ-এর ধারনার বাস্তবায়ন সহজ হবে।

টেকসই মিটার প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পানির যথাপোযুক্ত ব্যবহার সুনিশ্চিত করা সম্ভব

ওরাকল সম্প্রতি তাদের টেস্টিং দি ওয়াটার: স্মার্ট মিটারিং ফর ওয়াটার ইউটিলিটিস নামে একটি গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করেছে। এতে দেখা গেছে, পানি ব্যবস্থাপনাকারী ও পানি ব্যবহারকারী উভয়ই মনে করছেন, টেকসই মিটার প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পানির যথাপোযুক্ত ব্যবহার সুনিশ্চিত করা সম্ভব।

জরিপকৃতদের মধ্যে ৭১ শতাংশ পানি ব্যবহারকারী বিশ্বাস করেন, টেকসই মিটার প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে পানি ব্যবহার কমিয়ে আনা সম্ভব। অন্যদিকে, পানি ইউটিলিটি ব্যবস্থাপনাকারীদের ৭৩ শতাংশ মনে করেন, পানি সংরক্ষণে টেকসই মিটার প্রযুক্তির ইউটিলিটিগুলো গ্রাহকদের পানি ব্যবহারে সর্বোচ্চ সহায়তা করবে। টেকসই মিটার প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে দুটি বড় সুবিধা হলো, এটি দ্রুত পানির পাইপ ছিদ্র চিহ্নিতকরণসহ গ্রাহকদের পানি ব্যবহার পর্যবেক্ষণ করতে সাহায্য করে। তারা মনে করেন, পানি সংরক্ষণ করার লক্ষ্যে টেকসই মিটার প্রযুক্তি ব্যবহার যদিও কিছুটা জটিল তথাপি এর প্রকৃত বাস্তবায়নের মাত্রা এখন ক্রমশ বাড়ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় ১২শ জন পানি ব্যবহারকারী ও তিনশ জন পানি  ইউটিলিটি ব্যবস্থাপনাকারীর উপর এ গবেষণা পরিচালিত হয়েছে। রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, নিজস্ব কমিউনিটির জন্য পানি সংরক্ষণের ব্যাপারে সচেতন ৭৬ শতাংশ পানি ব্যবহারকারী। এছাড়া ব্যক্তিগত প্রয়োজনে পানি ব্যবহার কমিয়ে আনা সম্ভব বলে মনে করেন ৬৯ শতাংশ।

ওরাকল ইউটিলিটিজ এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং জেনারেল ম্যানেজার স্টিফেন স্কল বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে মানসম্পন্ন  গ্রিড এবং মিটারিং প্রযুক্তি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। বর্তমানে পানির উপযোগিতা, অবকাঠামোগত ও টেকসইগত চাহিদা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। ওরাকলের টেস্টিং দি ওয়াটার রিপোর্টে প্রতীয়মান হয় যে, পানির উপযোগিতা নির্ধারণ করে এর ব্যবহার সুনিশ্চিত করতে মানসম্পন্ন মিটার প্রযুক্তি ব্যবসায়িক চাহিদা পূরণের পাশাপাশি সাধারণ পানি ব্যবহারকারীদের সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

ওরাকল ইউটিলিটিজ হচ্ছে একটি পরীক্ষিত সফট্ওয়্যার অ্যাপ্লিকেশন যা কম খরচে সব ধরনের ব্যবসায়িক ইউটিলিটিকে সমন্বিত করার মাধ্যমে গ্রাহকদের ব্যবসায়িক সাফল্য নিশ্চিত করতে সহযোগিতা করে।

রাজশাহীর প্রযুক্তি নগর আলোচনার ইন্টারনেট গ্রুপ

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার বিষয়টিকে আরও বেশি ছড়িয়ে দিতে রাজশাহীকে তথ্যপ্রযুক্তি নগর হিসেবে গড়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে সম্প্রতি এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজশাহীর একটি স্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পরামর্শক মুনির হাসান, রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক মো. মেহেদী আল হাসান, তথ্যপ্রযুক্তি উদ্যোক্তা মেরাজুল ফেরদৌস, ডিজিটেকের প্রধান নির্বাহী এ এস এম হাসান, বিডিক্যান ইনফোসিসের প্রধান নির্বাহী মোঃ আহসান কবীরসহ অনেকে। মতবিনিময় সভায় রাজশাহীকে একটি তথ্যপ্রযুক্তির নগর হিসেবে গড়ে তোলার বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করা হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ বিষয়ে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়।

ফ্রান্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ম্যাসিফ কালেকশনের সাথে ই-সফটের চুক্তি স্বাক্ষর

ফ্রান্সভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ম্যাসিফ কালেকশন তাদের তৈরি পোশাক প্রতিষ্ঠানের অটোমেশনের জন্য সম্প্রতি তাদের ঢাকা অফিসে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ই-সফটের সাথে এক চুক্তি স্বাক্ষর করে। চুক্তি অনুযায়ী অনলাইন প্রোডাকশন ম্যানেজম্যান্ট সিস্টেম, অনলাইন একাউন্টিং, পে-রোল ও অন্যান্য সেবা দিবে ই-সফট। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ম্যাসিফ কালেকশনের চেয়ারম্যান মি. ম্যানুয়াল এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুরাদ হোসেন এবং ই-সফটের প্রধান নির্বাহী আরিফুল  হাসান অপু।

বাংলা গানের পরিপূর্ণ সম্ভার লাইভগান ডট কম

বাংলা সঙ্গীতপ্রেমীরা গান শোনার জন্য অডিও অ্যালবাম সংগ্রহের পাশাপাশি ইন্টারনেটে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে বলা যায় নিয়মিতই ঢুঁ মারেন। এক্ষেত্রে অনেক সময়ই কাঙ্খিত গানের সন্ধানে অনেকেই গলদঘর্ম হয়ে যান। কিন্তু খুঁজে পান না নিজের পছন্দের গানটি। কারণ হিসেবে বলা যায়, ইংরেজি-হিন্দিসহ অন্যান্য ভাষার গানের জন্য ইন্টারনেটে অসংখ্য ওয়েবসাইট থাকলেও কেবল বাংলা গানের ওয়েবসাইট আছে হাতেগোনা। আর এসব ওয়েবসাইটে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই যে গানগুলো পাওয়া যায় সেগুলোও খুব বেশিদিন আগের নয়। আর আগে ক্যাসেট আকারে যেসব অডিও অ্যালবাম রিলিজ হয়েছিল সেগুলো পাওয়াটাও বলা যায় বিরল। উপরন্তু প্রবাসে যেসব বাঙালি থাকেন তারা অনেক সময়ই নিজের পছন্দের গানটি সংগ্রহও করতে পারেন না। সুতরাং প্রিয় বাংলা গানটি শোনার ঝক্কি থেকেই যায়।

আর এসব দিক মাথায় রেখেই ইন্টারনেটে বাংলা সঙ্গীতপ্রেমীদের জন্য কেবল বাংলা গান নিয়েই করা হয়েছে www.livegaan.com। এ সাইটে একজন বাংলা গানের ভক্ত পাবেন তার পছন্দের প্রায় সব গানই। ১৯৫০ থেকে অদ্যাবধি যেসব গান রিলিজ পেয়েছে সেগুলোর প্রায় সবই এ ওয়েবসাইটে রাখার জন্য সাইট নির্মাতারা চেষ্টা করে যাচ্ছেন। নজরুল, রবীন্দ্র, লালন, ভাটিয়ালী, ভাওয়াইয়া, কীর্তন, ক্লাসিক্যাল, ব্যান্ড, আধুনিক, ফোক, রক, ফিউশন, মেটাল, ইন্সট্রুমেন্টালসহ নানা ক্যাটাগরি থেকে শ্রোতারা সহজেই খুঁজে নিতে পারবেন নিজের পছন্দের গানটি। একজন শ্রোতা যাতে সহজেই তার পছন্দের গানটি এ ওয়েবসাইট থেকে খুঁজে পান সেজন্য অ্যালবাম, টাইটেল কিংবা আর্টিস্টের নাম দিয়ে সার্চ অপশন রাখা হয়েছে। শ্রোতাদের কাছে সপ্তাহ বা মাসের সবচেয়ে জনপ্রিয় গান কোনগুলো সেটিও জানা যাবে। রয়েছে নিজস্ব প্লে লিস্ট তৈরির সুবিধা। তবে এ সাইটে কোনো ডাউনলোড অপশন রাখা হয়নি। মোটামুটি মানের ইন্টারনেট স্পিড (১২৮ কেবি) থাকলেই শ্রোতারা ইন্টারনেট থেকে সরাসরি গান শুনতে পারবেন।

বিসিসি ও বিডিজবসের আয়োজনে চাকুরীর মেলা

বিজ্ঞান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল কর্তৃক জাতীয় আইসিটি ইন্টার্ণশীপ ৭ম ও ৮ম ব্যাচ এর অপেক্ষমান ইন্টার্ন প্রার্থীদের প্লেইসমেন্ট এর জন্য দেশের বিভিন্ন আইসিটি কোম্পানীর সাথে সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে চাকুরীর সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে গত ২৮ জানুয়ারী  বিডিজবস ডট কমের সহায়তায় বিসিসি মিলনায়তনে এক চাকুরীর মেলা আয়োজন করা হয়। উক্ত মেলায় চাকুরীদাতা প্রতিষ্ঠান স্পেকটাম ইঞ্জিনিয়ারিং কনসোর্টিয়াম লিমিটেড, বিজনেস অটমেশন লিমিটেড, মিডিয়াসফট ডাটাবেস সিষ্টেমস লিমিটেড, টেকভ্যালী কম্পিউটারস লিমিটেড, অ্যাডভান্সড ইপিআর (বিডি) লিমিটেড, অ্যাসটেরিয়ড সিষ্টেমস লিমিটেড, ইনফিনিটি টেকনোলজি ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, ডাটাসফট সিষ্টেমস বিডি লিমিটেড, পিক্সিনেট লিমিটেড, আপলোড ইউরসেলফ সিষ্টেমস, দোহাটেক নিউ মিডিয়া, জানালা বাংলাদেশ লিমিটেড, বিডি জবস ডট কম লিমিটেড, সোলার সফট লিমিটেড, সাউথটেক লিমিটেড, গ্লোবাল ওয়েব আউটসোর্সিং লিমিটেড, সিএসএল সফটওয়্যার রিসোর্স লিমিটেড আংশগ্রহণ করে এবং ৭ম ও ৮ম ব্যাচ এর মোট ৩৩০ জন অপেক্ষমান ইন্টার্ন তাদের জীবন-বৃত্তান্ত জমাদেন। লিখিত/মৌখিক পরীক্ষা গ্রহণ পূর্বক যোগ্যতানুসারে বেশকয়েক জনকে উল্লেখিত প্রতিষ্ঠানে সরাসরি ইন্টার্ণী হিসেবে নিয়োগ পত্র প্রদান করা হয়। ইহা একটি ব্যতিক্রমধর্মী আয়োজন। যার মাধ্যমে ভিশন ২০২১ - ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন ত্বরান্বিত হবে বলে অভিজ্ঞ মহল আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

 

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী দিনের প্রযুক্তি নিয়ে সেমিনার

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় (এনএসইউ) এবং নিওষ্টার অ্যালায়েন্স (এনএসএ) এর যৌথ উদ্যোগে সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আগামী দিনের প্রযুক্তির উপর একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান হাসানুল হক ইনু।

তিনি তার বক্তব্যে বলেন, প্রযুক্তির সঠিক বিকাশ ছাড়া দেশের প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব নয়। আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষ গ্রামে বাস করে আর তাই এই মানুষদের কাছে প্রযুক্তির সর্বত্তোম সেবা পৌঁছে দেবার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া আমাদের স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন ধরনের প্রযুক্তি উদ্ভাবনের কথা চিন্তা করতে হবে। বর্তমানে সরকার সাধারণ মানুষের টেলিযোগাযোগের সুবিধার কথা চিন্তা করে দেশে স্বল্প মূল্যে মোবাইল ফোন তৈরির বিষয়টি অনুধাবন করছে। এছাড়া দেশের ডাকঘরগুলোকে প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের আর্থিক সেবা প্রদানের একটি মাধ্যম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য সরকার উদ্যোগ নিয়েছে এবং কিছুদিনের মধ্যে সাধারণ মানুষ এ সুবিধা পাবে। সরকার স্যাটেলাইট স্থাপনের মাধ্যমে দেশের টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরও উন্নত করার পরিকল্পনা করছে’।

সেমিনারের আইপি টেলিফোনি, থ্রিজি এবং ওয়াইম্যাক্স ইত্যাদি প্রযুক্তির উপর বক্তব্য উপস্থাপন করেন যথাক্রমে বিডিকম অনলাইনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুমন আহমেদ, গ্রামীনফোনের কারিগরি বিভাগের প্রধান পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ মুনির হাসান, বাংলা ট্রাক কমিউনিকেশনের প্রধান নির্বাহী তারিক ই হক, অজের বাংলাদেশের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা রাসেল টি আহমেদ, ফাইবার অ্যাট হোমের মহাব্যবস্থাপক ফেরদৌস আল আমিন, বেসিসের সহ-সভাপতি মামনুন কাদের এবং এনএসইউ তথ্যপ্রযুক্তি কেন্দ্রের (সিআইসিটি) পরিচালক মিফতাউর রহমান। সেমিনারটি পরিচালনা করেন ইলেকট্রিক্যাল এবং কম্পিউটার সাইন্স বিভাগের শিক্ষক ড. আওয়াল। এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এনএসইউ ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্নেন্সের চেয়ারম্যান এম এ কাশেম, ভাইস চেয়ারম্যান বেনজীর আহমেদ, উপাচার্য হাফিজ জি এ সিদ্দিকী, উপ-উপচার্য এস এ এম খায়রুল বাশার। সেমিনার শেষে এনএসএ এর ফাউন্ডার এবং প্রেসিডেন্ট এডওয়ার্ড অপূর্ব সিংহ সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপান করেন।

১৫তম সেনগ সম্মেলন

গত ৩ জানুয়ারী রাতে ঢাকার স্থানীয় একটি হোটেলে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণের মধ্য দিয়ে শেষ হলো দক্ষিণ এশীয় নেটওয়ার্ক পরিচালনাকারী অপারেটরস গ্রুপ সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অপারেটস গ্রুপ (সেনগ) এর ১৫তম সম্মেলন। ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এর সভাপতি আক্তারুজ্জামান মঞ্জুর সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) জিয়া আহমেদ পিএসসি, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক মোঃ মাহফুজুর রহমান। বিটিআরসি চেয়ারম্যান এ সময় তাঁর বক্তব্যে বলেন, আরো ইন্টারন্যাশনাল গেটওয়ে (আইজিডাব্লিউ) ও ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে (আইআইজি) লাইসেন্স দেয়ার বিষয়টি বিটিআরসি সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করছে। স্বল্প সময়ের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সেনগের চেয়ারম্যান গৌরব রাজ উপাধ্যায়া, সেনগ-১৫ সম্মেলনের আহবায়ক সুমন আহমেদ সাবির প্রমুখ। গত ২৭ জানুয়ারী বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আইসিটি বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলের সহায়তায় ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও ইনিস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি (আইআইটি) এ সম্মেলন শুরু করেছিল।

তথ্য প্রযুক্তি জ্ঞান বিকাশে পিসি ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ

তথ্যপ্রযুক্তি ম্যাগাজিন পিসি ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তি জ্ঞান বিকাশের লক্ষ্যে রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পিসি ওয়ার্ল্ড ম্যাগাজিনের পূর্ববতী সংখ্যাসমূহ দান করছে। এরই অংশ হিসেবে ইতিমধ্যে ইউনিভার্সাল টিউটোরিয়াল এবং ঢাকা প্রজেক্ট নামক একটি এনজিওতে পিসি ওয়ার্ল্ড পূর্ববতী সংখ্যাসমূহ দান করেছে।

পিসি ওয়ার্ল্ড আগামী দিনগুলিতে এই চলমান কার্যক্রম অক্ষুন্ন রাখবে এবং এর ধারাবাহিকতায় ক্রমান্বয়ে রাজধানীর অন্যান্য উল্লেখযোগ্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ ইস্পাহানী স্কুল, বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল, টুইট টিউটোরিয়াল, ন্যাশনাল ব্যাংক পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, নজরুল একাডেমী, সিদ্ধেশ্বরী কলেজ, আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, সেন্ট্রাল গভঃ কলেজ, ভিকারুন্নেছা নুন স্কুল, সানবীম স্কুল, মাষ্টারমাইন্ড এবং সাউথব্রিজ স্কুলে পিসি ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের পূর্ববর্তী সংখ্যাসমূহ দান করবে।

একুশে গ্রন্থমেলায় বিসিএস

ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ে একুশের স্বপ্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ এই শ্লোগান ধারণ করে বাংলা একাডেমি আয়োজিত মাসব্যাপী একুশে গ্রন্থমেলায় বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি (বিসিএস)-এর ব্যবস্থাপনায় ডিজিটাল প্রকাশনা ও সফ্টওয়্যার প্যাভিলিয়ন পরিচালিত হচ্ছে। এই প্যভিলিয়নে বিসিএস-এর তিনটি সদস্য প্রতিষ্ঠান বা তাদের সহযোগী প্রতিষ্ঠান নিজেদের তৈরি ডিজিটাল প্রকাশনা ও সফ্টওয়্যার প্রদর্শন করছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে আনন্দ কম্পিউটার্স, ডাটা সলিউশনস্ এবং সিসটেক ডিজিটাল।

উক্ত প্যাভিলিয়নে প্রদর্শনকারী ডিজিটাল প্রকাশনা ও সফ্টওয়্যারগুলোর মধ্যে রয়েছে আনন্দ কম্পিউটার্স-এর বাংলা লেখার সফটওয়্যার বিজয় একুশে, বিজয় বায়ান্ন, বিজয় শিশু শিক্ষা, বিজয় প্রাথমিক শিক্ষা সিরিজ এবং মোস্তাফা জব্বার রচিত ডিজিটাল বাংলাদেশ বই; ডাটা সলিউশনস্ এর বাংলা সাহিত্যের পাঁচ মহাতারকা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, বঙ্কিম চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, জীবনানন্দ দাস ও সুকান্ত ভট্টাচার্য রচনাবলীর ডিজিটাল সংস্করণ/বই; এবং সিস্টেক ডিজিটালের ডিজিটাল ভার্সন কুরআন ও আরবি বর্ণমালা শিক্ষা, বাংলা অভিধান, ছোটদের কম্পিউটার শিক্ষা, বাংলা অফিস টুলস, ম্যাক্রোমিডিয়া ফ্লাশ, হজ্ব ও উমরা, বিয়ে, আল্পনা আঁকা, ইন্টারএ্যাকটিভ লার্নিং সফটওয়্যার, বাংলার মুখ, টেকনো মোবাইল, মায়া ৪.৫, ড্রিমওয়েভার, থ্রিডি স্টুডিও ম্যাক্স, ইন্টারনেট কিট, অটোক্যাড ইত্যাদির বাংলা ভাষায় ভিডিও টিউটোরিয়াল সফটওয়্যার ও প্রকাশনা।

 

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.