Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  শিল্প সংস্কৃতি  ||  ৯ম বর্ষ ১১তম সংখ্যা ফাল্গুন ১৪১৬ •  9th  year  11th  issue  Feb - Mar  2010 পুরনো সংখ্যা
নাট্য সংগঠন Download PDF version
 

শিল্প-সংস্কৃতি

 

নাট্য সংগঠন

 

 

অপেরা’ নাট্য সংগঠনটি নাটক মঞ্চস্থ শুরু  করে ২০০৬ সালের ১৪ এপ্রিল। এ পর্যন্ত মোট ছয়টি নাটক মঞ্চে উপস্থাপিত হয়েছে। নাটকগুলো হচ্ছে- খলেক কথ্য, এই পিরিতি সেই পিরিতি, কৈবল্য, কায়েদ-ই-হায়াৎ, শেষরক্ষা ও মিরপুর মুক্তির পালা। পড়শর পক্ষ থেকে আমি এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাহবুব আলম শাহীনের মুখোমুখি হয়েছিলাম তাঁর কাছ থেকেই তার নিজের ও সংগঠনটি সম্পর্কে জেনেছি বেশ কিছু তথ্য।

 

পড়শী : মঞ্চ নাটকের সাথে জড়িত আছেন কবে থেকে?

মাহবুব : ১৯৯৭ সাল থেকে।

 

পড়শী : অপেরায় মোট কতজন নাট্যকর্মী আছে?

মাহবুব : মোট ৪৮ জন নিয়মিত কর্মী আছে।

 

পড়শী : মঞ্চ নাটকের জনপ্রিয়তা ধীরে ধীরে বাড়ছে না কমছে? এর কারণগুলি  কি কি?

মাহবুব : কমছে। থিয়েটারে যারা কাজ করছে তারা নতুন কিছু দিতে পারছে না বলে। আমাদের প্রচুর দর্শক আছে। কিন্তু সুন্দর কাজের প্রযোজনার অভাব দেখা দিয়েছে। ১৯৭০ সাল থেকে ৮০ পর্যন্ত এদেশে মঞ্চ নাটকের জোয়ার ছিল, ভালো নির্মাতা ও অভিনেতা ছিল। কিন্তু এখন কিছু দল ভাল করলেও অন্যেরা কোনরকমে কাজ চালাচ্ছে। আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটও এর জন্য দায়ী। ব্যক্তি উদ্যোগেই সংগঠনগুলি চলছে। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা নেই বললেই চলে যা অন্যান্য দেশের সরকার দিয়ে থাকে।

 

পড়শী : অভিনয়ের উপর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন কোথায়?

মাহবুব : আমি অভিনয়ের উপর কোন প্রশিক্ষণ নেইনি। তবে স্ক্রীপট রাইটিং -এর উপর কোর্স করেছি।

 

পড়শী : বাংলাদেশে মঞ্চ নাটকের ভবিষ্যৎ কেমন মনে হয়?

মাহবুব : এশিয়ার মধ্যে আমাদের দেশের নাটকের  নাট্যকৌশল ও নির্মাণের গভীরতা অনেক উন্নত। যদি জাতীয় পর্যায়ে পৃষ্ঠপোষকতা পাওয়া যায় এবং অন্যান্য বাঁধা না আসে তাহলে এশিয়া মহাদেশে বাংলাদেশ নেতৃস্থানীয় জায়গা দখল করতে পারবে।

 

পড়শী : অপেরা সম্পর্কে দর্শকদের অনুভূতি কেমন?

মাহবুব : থিয়েটার আন্দোলন দর্শক সৃষ্টি করতে পারে নাই। দর্শকদের মধ্যে থিয়েটারের কর্মীরাই প্রধান শ্রেনী। কিছু দর্শক আসে বিনোদনের অন্য কোন জায়গা না পেয়ে। আর উৎসব ছাড়া নিয়মিত দর্শক পাওয়া বেশ কঠিন। অপেরা একটি নবীন দল। আমাদের শুরুটা  চমৎকার । দলীয় পরিচালনা, নাট্য প্রযোজনা সব মিলিয়ে এটি দর্শকদের কাছে প্রতিশ্রুতিশীল একটি গোষ্ঠী।

 

পড়শী : নাটকের কাজে কোথায় কোথায় গেছেন?

মাহবুব : মঞ্চের কাজে ফরিদপুর, দিনাজপুর, যশোর, সিলেট, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর ইত্যাদি এলাকায় গিয়েছি।

 

পড়শী : মঞ্চের কাজ ছাড়া আর কিছু কি করেন?

মাহবুব : আমি পেশায় একজন ব্যাংকার। বর্তমানে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকে সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার পদে কর্মরত আছি। ছাত্রজীবনে ফুটবল খেলোয়াড় ছিলাম। মোট ৫০টি জেলায় ফুটবল খেলেছি।

 

পড়শী : নাটক মঞ্চস্থ করতে যেয়ে কখনও কি কোন সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন? হলে সেটা কেমন?

মাহবুব : সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে মহড়া কক্ষ না পাওয়া। আমাদেরকে পরিত্যক্ত একটি ঘরে কাজ চালাতে হয়। এ ব্যাপারে সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। লোকালয়ে এ ধরণের কক্ষে নাটকের মহড়া চালানো বেশ কঠিন। এ যুগের কর্মীরা দ্রুত পরিচিতি পেতে চায়। অনেক সময় তাদেরকে বোঝানো বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। এটি একটি মানসিক সংকট। তবে অপেরার জন্য এটি কোন জটিল সমস্যা নয়। মিরপুর এলাকাটিতে চল্লিশ লক্ষের বেশি মানুষ বাস করে। এখানে আধুনিক মিলনায়তন থাকলে নাটক মঞ্চস্থ করা সহজ হতো। সরকারকে এ ব্যাপারে অনেকদিন থেকে জানানো হচ্ছে।

 

পড়শী : মঞ্চ নাটকে আসলেন কেন?

মাহবুব : আমার ছোটবেলা থেকেই সাংগঠনিক দক্ষতা ছিল। অন্য থিয়েটারের এক বন্ধুর মাধ্যমে থিয়েটারে প্রবেশ। বন্ধুটি কানাডা প্রবাসী হওয়ার সময় আমাকে ঐ সংগঠনের দায়িত্বটি দিয়ে যায়।

 

পড়শী : কতদিন থিয়েটারের সাথে যুক্ত থাকতে চান?

মাহবুব : আমার থিয়েটার ভালো লাগে অনেক আগে থেকেই। আমি সবসময়ই এর সাথে যুক্ত থাকতে চাই।

 

পড়শী : পরিবার থেকে কে বেশি উৎসাহ দিয়েছে?

মাহবুব : আমার বাবা (প্রয়াত) বেশি উৎসাহ দিতেন। বর্তমানে স্ত্রী উৎসাহিত করলেও পরিবারকে তেমন সময় দিতে পারি না বলে কিছুটা বিরক্ত আমার উপর।

 

পড়শী : আপনার বড় শখ কি?

মাহবুব : আমার বড় শখ ভ্রমণ। এছাড়া রাজনৈতিক প্রবন্ধড়তেও পছন্দ করি। আমি বঙ্গবন্ধুরএকজন ভক্ত। তবে সরাসরি কখনও কোন দল করিনি। এ পর্যন্ত শ্রীলংকা বাদে সার্কের সব কয়টি দেশে আমি গিয়েছি।
 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.