Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  মূল রচনাবলীঃ  ||  ১০ম বর্ষ ১ম সংখ্যা বৈশাখ ১৪১৭ •  10th  year  1st  issue  Apr - May  2010 পুরনো সংখ্যা
অনলাইন ও মতামত জরীপে পড়শীর পাঠকদের ভাষ্য Download PDF version
 

পড়শীর পাঠক সমাজ

 

অনলাইন ও মতামত জরীপে পড়শীর পাঠকদের ভাষ্য


ভজেন্দ্র বর্মন ও সাবির মজুমদার

 

দেখতে দেখতে পড়শীর অনলাইনে যাওয়ার বর্ষপূর ঘটলো। পড়শী অনলাইনে যাওয়ার পর থেকে এর পাঠক সমাজ অনলাইনেই তাঁদের মতামত জানানোর সুযোগ পেয়ে আসছেন। অনেকেই বিভিন্ন বিষয়বস্তুর উপর তাঁদের বক্তব্য রেখেছেন। সেগুলোর মূল্যায়ন করা এবং পাঠকদের মতামতের উপর ভিত্তি করে পড়শীর উন্নয়ন সম্ভাবনা ও দিকনির্দেশ ভেবে দেখার তাগিদে উল্লেখযোগ্য যা কিছু পাওয়া গেছে তা এ নিবদ্ধে তুলে ধরার চেষ্টা করা হলো। মার্চ ও এপ্রিল, ২০১০-তে 'পাঠক মতামত জরীপ' শিরোনামে একটি জরীপ ফর্ম অনেকের কাছেই পাঠানো হয়েছিলো। স্বল্পসংখ্যক হলেও এ জরীপের ফলাফল অত্যন্ত গুরুত্বপূরর্ণ বলে বিবেচনা করা হয়েছে।

 

মার্চ-এপ্রিল ২০১০ পাঠক মতামত জরীপের ফলাফল

১. পড়শী পঠনঃ নিয়মিত ৬০%, মাঝে মাঝে ৪০%।
২. অনলাইন হিসেবে পড়শীঃ ভালো লাগে ৫০%
, ভালো লাগে না (ছাপানো পত্রিকা চাই) ৫০%।
৩. পড়শীতে দেখতে চানঃ প্রবাসী ই
স্যু নিয়ে লেখা ৬০%, প্রবাসীদের সাফল্যের খবর ২০%, সমসাময়িক ঘটনা ২০%।
৪. প্রিয় বিষয়বস্তুঃ প্রচ্ছদ কাহিনী ৪০%
, সাহিত্য ৩০%, নিয়মিত কলাম ১৫%, প্রযুক্তি-বন্ধন ১৫%।
৫. পড়শীর দুর্বল দিকঃ লেখার মান ৪০%
, বিশ্লেষণের অভাব ৪০%, গ্রাফি
ক্স ২০%।
৬. পড়শীতে বেশী দেখতে চানঃ প্রবাসী লেখকদের লেখা ৪০%
, দ্বিতীয় প্রজম্মের লেখা ৪০%, দেশী লেখকদের লেখা ১০%, রম্যরচনা ও কার্টুন ১০%।
৭. বাংলাদেশের রাজনীতি বিষয়ে পড়শীঃ নিরপেক্ষ ৫০%
, পক্ষপাতী ৫০%।
৮. দশ বছরে পড়শীর সাফল্যঃ প্রবাস ভিত্তিক পত্রিকা হিসেবে প্রতিষ্ঠা ৪০%
, প্রবাসে বাংলা পাঠক ও লেখক গড়ে তোলা ৩০%, প্রচ্ছদ কাহিনীর বিষয়- বৈচিত্র ১৫%, বিশ্ব বাঙালীর মুখপত্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা ১৫%।
৯. পড়শীর উন্নয়ন ও একে টিকে রাখার জন্যঃ নিয়মিত পড়তে ইচ্ছুক ৪০%
,
লেখা পাঠাতে উৎসাহী ২৫%, আর্থিক সাহায্যদানে আগ্রহী ২৫%, প্রকাশের জন্য দায়িত্ব নিতে চান ১০%।


অনলাইনে পাঠকদে
মন্তব্য  

পড়শীর পাঠকরা যখন মন্তব্য দেন তাতে তাঁদের মুক্তমনা, প্রশংসা, সংবেদনশীলতা, পক্ষপাতিত্ব বা প্রতিবাদে প্রতিফলন ঘটে। তাঁদের যা ভালো লেগেছে তাঁরা তার ভূয়শী প্রশংসা করেছেন। পক্ষান্তরে বিতর্কিত বিষয়ের উপর তাঁরা কেউ পক্ষে, কেউবা বিপক্ষে যোগ দিয়েছেন। এতরকম মন্তব্য এসেছে যে মনে হয় পড়শী যেন একটি জীবন্ত পত্রিকা! এর জন্য পড়শীর বিয়বস্তুগুলোই হয়তোবা কৃতিত্বের দাবিদার

পড়শীর নিয়মিত বিষয়বস্তুর মধ্যে পড়ে পড়শীর প্রচ্ছদ কাহিনী (মূল রচনাবলী)। এটি একটি বিশেষ ঘটনা বা বিষয় যা বেশ কিছু বিশ্লেষণমূলক রচনার মাধ্যমে তুলে ধরা হয়। অনলাইন সংখ্যাগুলোর মূল রচনাবলীর তালিকা দেয়া হলো। প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে এগুলো সময়োযোগী। শিরোনাম দেখেই বোঝা যায় যে গুটিকয়েক বাদে সবগুলোর পক্ষে বা বিপক্ষে কথা বলবার অবকাশ আছে।

বৈশাখ, ১৪১৬:      যুদ্ধাপরাধীদের বিচার  

জৈষ্ট, ১৪১৬ : গ্লোবাল ওয়ার্মিং ও বাংলা বদ্বীপ

আষাঢ়, ১৪১৬ :     বঙ্গ সম্মেলন ও ফোবানা সম্মেলন

শ্রাবন, ১৪১৬ :      বাংলাদেশে প্রবাসী বিনিয়োগ

ভাদ্র, ১৪১৬ : বাংলা সাহিত্যে হাস্যরস

আশ্বিন, ১৪১৬ :     বাউল গান ও সুফিবাদ

কার্তিক, ১৪১৬ :     প্রবাসে বাংলাদেশী সংগঠন

অগ্রহায়ন, ১৪১৬ :   প্রবাসে মসজিদ ও মন্দির

পৌষ, ১৪১৬ :      বিজয় দিবস ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকথা

মা, ১৪১৬ : বাংলাদেশে জঙ্গীবাদ

ফাল্গুন, ১৪১৬ :     ওবামা ও মার্কিন রাজনীতি

চৈত্র, ১৪১৬ : বাংলাদেশের এনজিও

 

পড়শীর অন্য সব বিষয়বস্তু মধ্যে পড়ে 'নিয়মিত কলাম' যা ওয়াহেদ হোসেনী ও অনিরুদ্ধ আহমেদ প্রতি সংখ্যায় একাধিক বিষয়ের উপর আলোকপাত করেন। এহসান নাজিমের 'অদ্ভুত উটের পিঠে'-কে একই ধরনের লেখা বলা যেতে পারে। এছাড়া রয়েছে 'সাহিত্য', 'সাম্প্রতিক', 'উত্তর আমেরিকার কর্মকান্ড', 'প্রযুক্তিবন্ধন', 'শিল্প সংস্কৃতি', 'ক্রীড়া' 'কৌতুক' বিভাগ। কখনও কখনও স্বাস্থের উপর লেখা থাকে। মাঝে মাঝে বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করা হয়। একটি সুন্দর রঙ্গিন প্রচ্ছদ প্রতি সংখ্যায় থাকে। এতকিছুর জন্য লেখকের সংখ্যা অনেক, তাঁদের লেখার ভঙ্গি, উপস্থাপনে বা মতমতের সাথে পাঠকের মিল বা অমিল হওয়াটাই বরং স্বাভাবিক। নিম্নে পাঠকদের সামান্য কিছু মন্তব্য উল্লেখ করা হলো।



·      অনলাইনে পড়শী : এ ব্যাপারে পাঠকরা প্রায় দ্বিধাবিভক্ত এখনও অনেকে ছাপানো পড়শী পেতে চান। তাঁরা স্বীকার করেন যে পড়শীর অনলাইনে যাওয়া মূখ্যতঃ অর্থনৈতিক কারণে। কেউ কেউ ছাপানো পড়শীর জন্য চাঁদা নবায়ন না করায় নিজেদের অপরাধী মনে করছেন। অনেকে আবার অনলাইনে 'শুধু পড়তেই পারছেন না, সাথে সাথে মতমতও রাখতে পারছেন' বলে খুশী।

·      পড়শীর প্রচ্ছদ : পাঠকদের কাছে পড়শীর প্রচ্ছদগুলোর প্রশংসার আর শেষ নেই। প্রতিটি প্রচ্ছদ অদ্ভূত সুন্দর। উদাহর স্বরূ, বৈশাখ ১৪১৬ সংখ্যা তাজুল ইসলামের 'শপথ' একজন পাঠকের চোখে 'মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে বাঁচিয়ে রাখার প্রচেষ্টা'। জ্যৈষ্ঠ সংখ্যায় সৈয়দ ইকবারের 'টিয়ার্স অফ নেচার' এর উপর একজন পাঠকের মন্তব্য, 'প্রকৃতির এত কান্না দেখে আরো কান্না পায়'

·      মূল রচনাবলী : পাঠকের প্রতিটি মূল রচনাবলীর উপর কম-বেশী মন্তব্য রেখেছেন। বেশীর ভাগ মন্তব্যই জীবন্ত বা ইতিবাচক। উদাহর স্বরূপ (ক) যুদ্ধাপরাধীদের বিচার (বৈশাখ, ১৪১৬) নিয়ে স্বপক্ষে ও বিপক্ষে পাঠকেরা মত প্রকাশ করেছেন, (খ) গ্লোবাল ওয়ার্মিং (জৈষ্ট, ১৪১৬)-এর উপর লেখা 'বিশ্ব উষ্ণায়ন ও বাংলাদেশ' প্রবন্ধকে 'খুবই সুন্দর ও সময়োপযোগী' বলে মনে করেছেন। (গ) প্রবাসে মসজিদ ও মন্দির সংখ্যাকে (অগ্রহায়ন, ১৪১৬) একজন পাঠক 'বড় পলিটিক্যালী কারেক্ট' বলেছেন।

·      নিয়মিত কলাম : এ কলামের অংশ হিসেবে অনেক কিছুই স্থান পায়। এসব অনেকেই পড়েন তা সুস্পষ্ট বোঝা যায়। পাঠকেরা নতুন কিছু দেখলেই প্রশংসা করেন, সেই সাথে কখনও কখনও পরবর্তী সংখ্যার লেখার জন্য অপেক্ষায় থাকবেন বলে জানান। পক্ষান্তরে কোন কোন বিষয় নিয়ে তর্ক শুরু হয়ে যায়। এরকম একটির উদাহর হলো 'পাকিস্তান : জম্মই যার আজম্ম পাপ' (জৈষ্ট, ১৪১৬)।

·      সাহিত্য : সাহিত্যের ব্যাপারে পড়শীর পাঠক সমাজ খুবই আগ্রহী। ভালো কবিতা ও গল্পের উপর পাঠকদের মন্তব্য শুধুমাত্র কবি বা গল্পকারের জন্য নয়, পড়শীর জন্যও।

·      প্রযুক্তিবন্ধন : বাংলাদেশে প্রযুক্তির প্রয়োগ বিষয়ে কোন উদ্যোগ বা বিজ্ঞান-ভিত্তিক সংবাদ পাঠকদের দৃষ্টি আকর্ষ করে। উদাহর স্বরূ'কমিউনিটি রেডিও উদ্যোগ' (বৈশাখ, ১৪১৬) ও জ্যোতির্বিদ্যার ওপর বাংলাদেশের নতুন ডাকটিকিট (কার্তিক, ১৪১৬) উল্লেখ করা যেতে পারে।

·      সাম্প্রতিক : ২৫শে ফেব্রুয়ারীর 'পিলখানা ট্রাজেডি বিদ্রোহ না গণহত্যা' (বৈশাখ, ১৪১৬)-এ বিভাগের একটা উদাহর বলা যায়। এক্ষেত্রে কিছু পাঠক সমবেদনা প্রকাশ করেছেন, কেউ কেউ প্রধানতঃ মনগড়া কারণ বা ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

এটা হয়তোবা অত্যুক্তি হবে না যে পড়শী উত্তর আমেরিকায় মাসিক পত্রিকা হিসেবে এখন সুপ্রতিষ্ঠিত। এটি হয়েছে এর প্রকাশক, সম্পাদক, লেখক ও পাঠক সমাজের সক্রিয় সহায়তা ও অংশগ্রহণের ফলস্বরূপ। জরীপে এবং লিখিত মন্তব্যে এটাও প্রকাশ পায় যে পাঠক সমাজ পড়শীর উজ্জল ভবিষ্যত চান। আশা করি পড়শীর জন্য তাঁদের সহানুভুতি ও সহায়তা অটুট থাকবে ও ক্রমশঃ বৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে তাঁরা পড়শীর সঠিক দিকনির্দেশনার জন্য তাঁদের মন্তব্যদান অব্যাহত রাখবেন।

 

এপ্রিল ১০, ২০১০

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.