Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  শিল্প সংস্কৃতি  ||  ১০ম বর্ষ ১ম সংখ্যা বৈশাখ ১৪১৭ •  10th  year  1st  issue  Apr - May  2010 পুরনো সংখ্যা
নাট্যসংগঠন ‘সাত্ত্বিক Download PDF version
 

শিল্প-সংস্কৃতি

নাট্যসংগঠন ‘সাত্ত্বিক

ইসমত আরা বেগম

সাত্ত্বিক নাট্য সম্প্রদায় এর কার্যক্রম শুরু করে ১৯৯৪ সালের নভেম্বর মাসে যা পূর্বে মিরপুর থিয়েটার নামে পরিচিত ছিল। সাত্ত্বিক নামকরণ করেন প্রখ্যাত নাট্যকার ও অভিনেতা মমতাজ উদ্দীন আহমেদ। সাত্ত্বিক নাট্য সম্প্রদায় ছাড়াও সাত্ত্বিক লিট্ল থিয়েটার, সাত্ত্বিক শিল্পাঙ্গন, পাঠাগার ও প্রকাশনা আছে। পথ নাটক দিয়ে যাত্রা শুরু  করেছিল এই নাট্য সম্প্রদায়। একটি পথ নাটক প্রস্তুত করতে সময় লাগে প্রায় পনের দিন। এভাবে পাঁচটি পথ নাটক প্রদর্শিত হওয়ার পর দলটি মঞ্চ নাটকের কাজে নামে। এ পর্যন্ত সাত্ত্বিক মোট ১৮টি মঞ্চ নাটক প্রদর্শন করেছে। আর সাত্ত্বিক লিট্ল  থিয়েটার করেছে তিনটি। তাদের মতে নাট্যকর্মী তৈরি করার জন্য শিশুদের একটি দ থাকা প্রয়োজন। ঢাকা বা ঢাকার বাইরের দর্শকদের পছন্দ হচ্ছে কমেডি নাটক। তাদের মঞ্চস্থ পেজগী নাটকটির জনপ্রিয়তা ছিল ভীষণ। কমেডি নাটক হওয়ায় এটি অন্যান্য জেলাসহ ঢাকার প্রায় সব মঞ্চে প্রদর্শিত হয়েছে। সম্প্রতি এ বছরের শুরুতে এর ৭৬তম প্রদর্শনী শেষ হলো। সাত্ত্বিকে স্থায়ী সদস্য রয়েছে প্রায় ৫০ জন। গ্রুপ থিয়েটার আন্দোলনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যকে মাথায় রেখে তারা কাজ করে চলে। ২০০৪ সালে ভারতের উড়িষ্যাতে অল ইন্ডিয়া ফেস্টিভালে ইনভাইটেড হয়ে দলটি কুসুম বেত্তান্ত নাটকটি মঞ্চস্থ করেছিল। ইন্টারন্যাশনাল ক্যাটাগরিতে একবার প্রদর্শিত হওয়ার পর নাটকটি সমাপনীর দিন আরেকবার মঞ্চে উপস্থাপিত হয়েছিল। বর্তমানে ইনডোর বিনোদন বেড়ে যাওয়ায় আর জঙ্গীবাদীদের বোমা হামলার কারণে দর্শকদের মাঝে মঞ্চ নাটকের প্রতি আগ্রহ অনেক কমে গেছে। এই দলগুলোর উদ্দেশ্যই ছিল সাধারণ দর্শকদের মনে ভয় সৃষ্টি করা। ২০০১ সালের পর যা প্রকট আকার ধারণ করে। এর কুফল তারা এখনও বয়ে বেড়াচ্ছেন। নাট্য আন্দোলনের সাথে সাত্ত্বিক পুরোপুরি সম্পৃক্ত। সাংস্কৃতিক আন্দোলনের কোন বিকল্প নাই। সংস্কৃতিকে একটি দেশের বিশেষ অঙ্গ হিসেবে গণ্য করা হয়। ১৯৬৯ বা ১৯৫২ সালেও সাংস্কৃতিক আন্দোলন হয়েছে। একে বাদ দিয়ে রাজনীতি হতে পারে না। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সরকার অভিনয় নিয়ন্ত্রণ আইন বলবৎ করে নাট্য আন্দোলন বন্ধ করার অপপ্রয়াস চালিয়েছে। মূলতঃ ১৮৯৭ সালে প্রনীত এই আইনটি ১৯৯৭ সালে এসে বাতিল হয়। এই দলটির বড় সমস্যা ছিল হড়ার জায়গার অভাব। আগে স্কুল-কলেজগুলোতে মহড়া চালানো হতো। যখন সরকারিভাবে তাদেরকে স্কুল-কলেজে মহড়ায় বাধা দেওয়া হয় তখন কোন উপায় না দেখে দলের কোন সদস্যের বাড়ির বারান্দায় বা ছাদে বা খোলা মাঠে রিহার্সেল চালানো হতো। এখন মাসিক চাঁদা দিয়ে ঘর ভাড়ার একটা বন্দোবস্ত তারা করেছেন। সাংস্কৃতিক আন্দোলনকে বন্ধ করতে চাওয়া হয়েছে রাজনৈতিক বিশ্বাস থেকে। কিছুদিন আগে মিরপুর মুক্ত দিবস উদযাপিত হলো। এতে সাত্ত্বিক নাট্য সম্প্রদায় অংশ নিয়েছিল। দিবসটি উদযাপনের উদ্দেশ্য ছিল এই দিনটিকে সরকারিভাবে ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত যাতে নেওয়া হয়। এর সাধারণ সম্পাদক সগীর মোস্তফা ছোটবেলা থেকেই নাটকের সাথে জড়িত। তার কাছে আমার প্রশ্ন ছিল-

পড়শী : সাত্ত্বিকের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে আপনার কি ধারণা?

সগীর : নাট্যকর্মী ও সাংগঠনিক কর্মী দু'টোই দরকার যে কোন দলকে টিকে থাকার জন্য। সাত্ত্বিক তারুণ্য নির্ভর, একাগ্র ও একনিষ্ঠ একটি দল। আমাদের কর্মীদের আমরা নিজেরাই সবকিছু শিখিয়ে তৈরি করে থাকি। সেক্ষেত্রে আমাদের সমৃদ্ধির সম্ভাবনাই বেশি।

 

মন্তব্য:
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.