Home | About Us | Porshi Team | Porshi Patrons | Event Announcement | Contact Us
হোমপেজ পুরনো সংখ্যা: সূচীপত্র  সাহিত্য  ||  ১০ম বর্ষ ৫ম সংখ্যা আশ্বিন ১৪১৭ •  10th  year  5th  issue  Sep - Oct  2010 পুরনো সংখ্যা
অসতী হয়েছে ময়না Download PDF version
 

সাহিত্য

 

ধারাবাহিক উপন্যাস

অসতী হয়েছে ময়না               

দীপিকা ঘোষ

 

পাঁচ.

বছরখানিক আগে রামচন্দ্রপুর গাঁয়ে হঠাৎ করেই একটি প্রাসাদোপম অট্টালিকা তৈরী হয়েছে।  সহসা কী কারণে এই প্রত্যন্ত গ্রামের মধ্যে এমন এক অসম স্থাপত্যের সম্ভাবনা দেখা দিলো তা নিয়ে শুরুতে সাধারণ জনজীবনে বিচিত্র কৌতূহল ও জানার আগ্রহের অন্ত ছিলো না। যে জমিতে অট্টালিকাটি উঠেছিলো, অনেককাল ধরে সেটি  পতিত পড়ে ছিলো কুমার নদীর বহু প্রাচীন একটি খাত হিসেবে।  বহুকাল অনাবাদী থাকায় স্থানটিতে বন্য লতাগুল্ম  আর ঝোপঝাড়ও গজিয়ে উঠেছিলো প্রচুর।  এ রকম জায়গা কারও নির্দিষ্ট  সম্পত্তি হতে পারে কিনা সে জিজ্ঞাসা নিয়ে অবশ্য কোনোদিনই গ্রামবাসীদের মনে প্রশ্ন দেখা দেয়নি। কিন্তু সেই অট্টালিকা যখন ধীরে ধীরে মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রসা নামে পরিচিতি লাভ করলো, তখন যার উদ্যোগে এবং যে কোনো উপায়েই তার জন্ম হোক না কেনো সেটা নিয়ে আর কারুরই মাথাব্যথা রইলো না। বরং গ্রামবাসীরা আনন্দিত। শিক্ষার মাধ্যমে তাদের সন্তানসন্ততিরা এখন থেকে আলোকপ্রাপ্ত জীবন লাভ করবে। তারা গণ্যমান্য হবে। সম্মানীয় হবে। নিরক্ষর হলেও শিক্ষার মর্যাদা তারা বোঝে।  শিক্ষাবিহীন জীবন যে মানুষের সমাজে কল্যাণ বয়ে আনে না, এই বোধোদয় তাদের অনেকের মধ্যেই কম বেশী বিদ্যমান ছিলো।  তাই কেবল রামচন্দ্রপুর গাঁয়ের নয়, আশেপাশের আরও চার পাঁচটি গাঁয়ের ছেলেমেয়েরাও এই মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসায় বিদ্যালাভের জন্য শুরু থেকেই যাতায়াত আরম্ভ করেছিলো ।                                                                

মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসার চার পাঁচজন শিক্ষকের মধ্যে এখনও পর্যন্ত প্রধান হুজুর শায়েখ নেয়ামতুল্লাহ মোক্তারিই বিশেষভাবে গ্রামবাসীদের কছে পরিচিত।  কেবল বয়সে প্রাচীন হবার কারণে নয়, তার আচরণেও সাধারণ মানুষ বড় সন্তুষ্ট। অকাতরে যখন তখন গ্রামবাসীদের কাছে কুরআন আর সুন্নতের জ্ঞানোপদেশ বিলোতে তিনি কার্পণ্য করেন না।  দেখা হলেই হেসে অমায়িকভঙ্গীতে বাক্যালাপ করেন।  আরও অনেক ধর্মীয় উপদেশ শোনার জন্য তাদের বার বার মাদ্রাসায় আসার আহ্বান জানান। তবে মোক্তারির অতি  দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠার মূলে এগুলো বিশেষ কারণ হলেও আরও একটি উল্লেখযোগ্য কারণও পেছনে ছিলো। গ্রামের সর্বগণ্য ধনী কৃষক দানিয়াল ফকিরের সঙ্গে হুজুরের খুব অল্পদিনেই গভীর সম্পর্ক স্থাপিত হয়েছিলো নানা ভাবগম্ভীর শাস্ত্রীয় আলাপচারিতার মাধ্যমে।  দানিয়াল ফকিরের প্রচুর পরিমাণে কেবল মাঠান জমি নয়, মৎস্য চাষের জন্যও রয়েছে বড় দুটো পুকুর।  রয়েছে বিরাট এক ফলের বাগান আর করিমগঞ্জের বাজারে প্রতিষ্ঠিত কাঠের ব্যবসা। যথেষ্ট অর্থসমাগম আছে বলে তিন বছর আগে নিজের জমিতে সব মুসল্লিদের জন্য একখানা মসজিদও  সে গড়ে দিয়েছিলো।  তার এত বড় ফরয্ কাজের জন্য গাঁয়ের সকলেই খুব খুশী তার ওপরে।  শায়েখ নেয়ামতুল্লাহর গ্রামবাসীদের সঙ্গে এত অনায়াসভাবে তাড়াতাড়ি পরিচিতি লাভের জন্য দানিয়াল ফকিরের ভূমিকা তাই অনেকখানি।

দানিয়াল ফকিরের ওপরে খুশমেজাজ আছে মোক্তারি হুজুরেরও।  কারণ দানিয়াল বয়সে যথেষ্ট তরুণ হলেও ভারী ধর্মপরায়ণ।  শরীয়তের সব রকম বিধিবিধান মেনে চলার জন্য হুজুর তাকে প্রকৃত মুমিন বলে মনে করেন।  তার মসজিদে তাই নেয়ামতুল্লাহ মোক্তারি চার সহকর্মীকে নিয়ে সকাল সন্ধ্যায় রোজই আসেন নামায আদায় করতে।  বলা চলে হুজুরের সঙ্গে গাঁয়ের মানুষের, বিশেষত মুসল্লিদের এখানে এসেই পারস্পরিক আলাপচারিতা চলে। নেয়ামতুল্লাহ ভাবগম্ভীর মুখে তাদের নানাবিধ ধর্মীয় জিজ্ঞাসার জবাব দেন। সন্তুষ্টচিত্তে হাসি মুখে সবার পারিবারিক পর্যায়ের খোঁজখবরও নেন।  আর একদিন এভাবেই মসজিদের সীমানা ছাড়িয়ে মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসার বড় হুজুর গ্রামবাসীদের পারিবারিক জীবনকেও টেনে আনেন নিজের নাগালের মধ্যে। সাধারণ মানুষ হুজুরের এমন সাদর প্রশ্রয়ে বড় আনন্দিত।  কারণ হুজুর তাদের এরই মধ্যে বোঝাতে সক্ষম হয়েছিলেন,  তার সব রকম উপদেশ অক্ষরে অক্ষরে পালন করলে দানিয়াল ফকিরের মতো তাদেরও ইহকাল এবং পরকালের জীবন হবে নিশ্চিতভাবে ইহসানপূর্ণ। আল্লাহ্ তাদের উভয়লোকেই যথাযোগ্যভাবে পুরস্কৃত করবেন।

আজ মাদ্রাসায় ক্লাশ শেষ হবার পরে বাইরে গাছের ছায়ায় বসে কয়েকজন বৃদ্ধ গ্রামবাসীর সঙ্গে সমাজের নানা রকম অনাচার আর সমস্যার  প্রসঙ্গ তুলে আলোচনা করছিলেন শায়েখ নেয়ামতুল্লাহ।  এমন আলোচনাসভা আজই অবশ্য প্রথম নয়।  মাঝে মাঝেই পরকালভীত গুটিকয়েক বৃদ্ধ মানুষ গভীর মনোযোগে মোক্তারির ধর্মীয়ভাষ্য শুনতে আসেন।  এমন ভাবগম্ভীর বিষয়ের সব ব্যাখ্যাই যে তারা বুঝতে পারেন তা নয়।  তবে এ কথা তারা আন্তরিকভাবে বিশ্বাস করেন, পবিত্র মাদ্রাসায় শিক্ষালাভ করে তাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মই যে কেবল ইহসানপূর্ণ  ইহকাল ও পরকাল প্রাপ্ত হবে তাই নয়।  নিত্য দিন  সূন্নত-ই- রসূলূল্লাহ অনুসরণ করে পরিচালিত যার জীবন, সেই শায়েখ নেয়ামতুল্লাহর সাহচর্য পেয়ে তারাও পরকালে দোজখের যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাবেন।  কারণ শায়েখ নেয়ামতুল্লাহই তাদের অনেকবার বলেছেন -   মুসলমান সমাজে আজ যে এত অন্যায়,এত অবিচার,এত বড় অবনতি দেখতে পাচ্ছেন তার কারণ কী জানেন?  ইবাদত বন্দেগীর দিকে কারুর মন নাই!  পরহেযগারী নাই!  আল্লাহ্ভীতি নাই!  অথচ আল্লাহ্পাক বলেছেন  আদ্দুইয়াউঁ মাজরিআতুল আখিরাহ্ - অর্থাৎ এই বিশ্বসংসার হলো তমাদের অনন্ত পরকালের শস্যক্ষেত্রস্বরূপ।  এইখানে বসে যে কার্যকলাপ তমরা করবে পরকালে গিয়ে ফল ভোগ করবে তার!  যদি তমরা অবৈধ কার্য করো, হারাম কার্য করো, দোজখের প্রজ্জ্বলিত অগ্নিকুন্ডে তাহলে সারাক্ষণ দগ্ধ হয়ে অসীম যন্ত্রনা ভোগ করবে!  আর যদি সূন্নত- ই- রসূলূল্লাহ মুতাবেক কার্যকলাপ করো তাহলে পরকালে লাভ হবে বেহেশ্তের পরম সুখ!    আজ অবশ্য এই সব বৃদ্ধ মানুষদের মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসায় এমন সময়ে সমবেত হবার পেছনে বিশেষ একটি কারণ ছিল। আজ সন্ধ্যায় সমস্ত  গ্রামবাসীদের দানিয়াল ফকিরের মসজিদে তাবলীগের দাওয়াত দেয়া হয়েছিল।  কেবল রামচন্দ্রপুরে নয়,আরও তিন চারটি গাঁয়েও গতকাল দানিয়াল ফকির নিজে হুজুরের পক্ষ থেকে তাদের দাওয়াত দিয়ে এসেছিলো। তাই সূর্যের আলো সম্পূর্ণ অস্তমিত হবার পূর্বেই দেখা গেলো, সে পবিত্র তাবলীগে যোগ দিতে ভিন গ্রাম থেকেও অনেকেই এসে হাজির হচ্ছে। মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসা সকলেরই পরিচিত। তাবলীগে যোগ দিতে আসা গ্রামবাসীদের অনেকের সন্তানসন্ততিরাই গত বছর থেকে এখানে শিক্ষালাভ করে চলেছে।  নেয়ামতুল্লাহ  মেহমানদের প্রত্যেকের আগমনেই বড় সন্তুষ্ট হচ্ছিলেন।  বিগলিত হাস্যে বারবারই তাই উচ্চারণ করছিলেন-   তাবলীগ হলো ফরযে কিফায়া!  তাবলীগে অংশগ্রহণ করলে আল্লাহ্ রসূলের মহব্বত শত গুণে বর্ধিত হয়!  একশোজনের মধ্যে যদি একজনও  এতে যোগ দিতে পারেন তাহলে সেই একজনের পূণ্যফল একশোজনের ওপরেই বর্তায়! নিয়মিত তাবলীগ করতে পারলে তাই অশেষ সওয়াব! মাঝে মাঝে আমরাও তাবলীগ করবো! আপনারা সবাই আসবেন!   সন্ধ্যা পূর্ণ হবার আগেই দানিয়াল কয়েকজন সহচর সঙ্গে নিয়ে মাদ্রাসায় এসে উপস্থিত হলো।  হুজুর পূর্ব কথার আলোচনা থামিয়ে তাকে দেখেই পূর্ণ আগ্রহে জিজ্ঞেস করলেন - সবকিছু ঠিকঠাক আছে তো দাইন্যাল?    দানিয়াল বিরাট এক সেলাম ঠুকে বললো -  যে হুজুর! সবাই আপনার জন্যে মসজিদে অপেক্ষা করছে। সোনাঘাটির দবীর গাজীও আপনার কথা শুইনে আসছেন তাবলীগে যোগ দিতে। আর আপনারে সেই কথা বইলতেই আমি ..!    দানিয়াল ফকিরের কথা শেষ হওয়ার আগেই হুজুর মোক্তারি উৎফুল্ল চিত্তে মসজিদে যাবার জন্য উঠে দাঁড়ালেন বৃদ্ধ দবীর গাজীকে বিশেষ সম্মান দেখাবার জন্যে। দবীর গাজী খুব মহব্বতওয়ালা মানুষ। এককালে নেয়ামতুল্লাহ্র বড় উপকার করেছিলেন এই গাজী। অনেককাল আগে একবার সন্ধ্যারাতে প্রবল ঝড়ের মুখে নদীতে নৌকো ডুবে প্রায় মরতে বসেছিলেন নেয়ামতুল্লাহ।  তখন নিতান্তই বালক তিনি।  চোখে পড়তেই সেই উত্তাল নদী সাঁতরে তাকে তীরে তুলেছিলেন দবীর । তারপরে নিজের বাড়ীতে এনে অশেষ যত্নে সুস্থ করে তুলেছিলেন নেয়ামতুল্লাহ্কে। জীবন রক্ষার সেই স্মৃতি গভীর কৃতজ্ঞতায় আজও মোক্তারিকে নাড়া দেয়।  ভাগ্যক্রমে তার সঙ্গে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য গত বছর সোনাঘাটিরই এক বিয়ে বাড়ীতে হঠাৎ দেখা হয়ে গিয়েছিলো নেয়ামতুল্লহার আর তখনই তিনি দবীর গাজীকে জানিয়েছিলেন,  রামচন্দ্রপুরের মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসায় কিছুকাল আগে শিক্ষকতার কাজে যোগ দিয়েছেন তিনি।   সেই সঙ্গে সবিনয়ে এ কথাও মোক্তারি বলেছিলেন -   তার বহুকালের স্বপ্ন, ধর্মবিমুখ অনাচারী মানুষগুলোকে ধর্মীয় আলোচনাসভায় আকর্ষণ করে সমাজের সব অনাচার দূর করার প্রচেষ্টা চালাবেন।  কেবল শরীয়ত মেনে জীবন পরিচালনা করলেই যে তাদের ইহলৌকিক আর পারলৌকিক জীবনে কল্যাণ আসবে, এই সত্যটা  মুসলমান সমাজকে যথাসাধ্যই বোঝানোর চেষ্টা করবেন তিনি।  

দবীর গাজী খুব খুশী হয়েছিলেন সেই কথায়।  তাই তাবলীগের দাওয়াত পেয়ে বহু কষ্ট সয়েও এমন বৃদ্ধ বয়সেও ছেলে আর নাতীর সঙ্গে ছুটে এসেছেন নেয়ামতুল্লাহর কথা শুনে।  যদিও গোধূলি অতিক্রান্ত হয়ে সন্ধ্যে হতে এখনও অনেকটাই বাকী তবু নেয়ামতুল্লাহ গাজীর সঙ্গে বিশেষভাবে সাক্ষাৎ করতেই সঙ্গীদের নিয়ে বেশ দ্রুত পায়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন ফকিরের মসজিদের দিকে।  জৈষ্ঠ্যমাসের দীর্ঘ দিন সারাক্ষণ রোদের তাপে উত্তপ্ত হলেও কিছুক্ষণ আগে থেকে হঠাৎ দক্ষিণ পশ্চিমের কোণ ছুঁয়ে হাল্কা হাল্কা ঝিরঝিরে ঠান্ডা বাতাস বইতে আরম্ভ করেছিলো। পথ চলতে চলতে সেদিকে তাকিয়ে নেয়ামতুল্লাহ হঠাৎ  চিন্তিত মুখে জিজ্ঞেস করলেন -   ঠান্ডা বাতাস বইছে মনে হয়, দেয়া নামবে নাকি দাইন্যাল?    জবাবে আকাশে পল্কা মেঘের শরীরে এক মুহূর্ত চোখ বুলিয়ে নিয়ে দানিয়াল জবাব দিলো  -    যে না হুজুর,সে ভয় নাই মনে হয়। আকাশে দেয়া নামবার মতোন সেই রকম ম্যাঘ তো দেইখছি না। হয়তো কাছাকাছি কুনোখানে হচ্ছে তাই ..!   হুজুর দানিয়ালের কথা শুনে আশ্বস্ত হয়ে পথ চলতে আরম্ভ করলেন। বৃষ্টি হলে সমূহ বিপদ। সবাই সময়ে এসে পৌঁছুতে পারবে না।  দানিয়াল ফকিরকে হুজুরের ভারী বিশ্বাস।  রোজ পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়া মানুষ দানিয়াল। নফল নামাযও মাঝে মাঝে আদায় করে সে। তার কথা সত্য হবে অবশ্যই। নেয়ামতুল্লাহ নিশ্চিন্ত হলেন এবং নিশ্চিন্ত  হয়ে সদলবলে এগিয়ে চললেন দানিয়ালের মসজিদের দিকে।

দানিয়াল ফকিরের মসজিদে যাওয়ার পথে, বাঁকের মাথা ঘুরলে বুড়ো শিবঠাকুরের মন্দিরের সামনের দিকটা চোখে পড়ে খানিকটা। কিন্তু সে যে একখানা অর্ধজীর্ণ মন্দির এই বোধোদয় নেয়ামতুল্লাহ্র আজও হয়নি। গাঁয়ের লোকের বহু রকমের সংবাদ জানলেও নদীপারের নির্জন জঙ্গলাকীর্ণ স্থানে যে একটি শিবমন্দিরের উপস্থিতি আছে, সে সংবাদ জানা ছিলো না তার। আজ জানা হলো একেবারেই একটি অচিন্ত্যনীয় পথে।  মসজিদে মোক্তারির তাবলীগের দাওয়াত পেলেও আজ বাড়ী ছিলো না ছুরহাব মিঞা।  হাটের দিনেই অর্থ উপার্জন বেশী হয় বলে দুপুরের আগেই সে ব্যবসায়ের কাজে বেরিয়েছিলো। শুক্র আর মঙ্গল সপ্তাহে দু দিনের হাটেই নিয়মিত যায় রাব্বুল মিঞার বড় ছেলে।  সেই ডিম বিক্রির পুরনো ব্যবসাটা আজও বজায় আছে তার। তবে এখন আর গ্রামান্তরে ঘুরে ঘুরে ডিম সংগ্রহ করতে হয় না তাকে। ময়নার তৈরী নিজের বাড়ীর খামারের ডিমই বিক্রী করতে যায় সে। আজ মঙ্গলবার বলে ঘরের সব কাজ সেরে উপবাস থেকে নদীর ঘাটে ¯স্নান সেরে তুলসীদাসীর নির্দেশ মতো লাল সুতো আর পাথর সঙ্গে নিয়ে শিবঠাকুরের মন্দিরের দিকে যাচিছলো ময়না। সে অবশ্য তখনই বিষয়টা জানাতে চায়নি বাড়ীর কাউকে। যে ব্যর্থতার বেদনা একান্তই তার নিজের, তাকে অন্যের কাছে প্রকাশ করে নতুনভাবে সহানুভূতি লাভের সম্ভাবনা যে নেই সেটা স্বামী শাশুড়ীর আচরণ থেকেই স্পষ্ট বুঝে গিয়েছিলো সে।

মাথায় আধখানা ঘোমটা টেনে খুব দ্রুত পায়ে মন্দিরের দিকে হেঁটে যাচ্ছিলো ময়না। আজ সেখানে তুলসীদাসী  তাকে ঝুল বাঁধা শেখাবে,এমন আলোচনা তুলসীপিসির সঙ্গে আগেই হয়েছিলো তার।  যে পথ দিয়ে ময়না  দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছিলো সেটা কেবল সংকীর্ণই নয়, দু পাশে ঘন গাছের ছাউনিতে অস্পষ্টও অনেকখানি।  তাই পথের বাঁকটা ঘুরতে হঠাৎ একেবারে এক দঙ্গল মানুষের মুখোমুখি হয়ে অপ্রস্তুত হয়ে গেলো  সে।  ময়না সম্ভবত ভেতরের উত্তেজনায় অনেকখানি অন্যমনস্ক ছিলো তখনও। সম্পূর্ণ মুখোমুখি হবার পরেই কেবল অন্যের উপস্থিতি সম্পর্কে সচেতন হলো সে এবং হয়েই খানিকটা থমকে থেমে পড়ে সসম্ভ্রমে মাথা নিচু করে দ্রুত সরে দাঁড়ালো কয়েকটি ঝাঁকড়া গাছের আড়ালে। শায়েখ নেয়ামতুল্লাহ্র সহকর্মীদের কেউই তাকে চেনে না। তবে রামচন্দ্রপুরের সব অধিবাসীদের কাছেই পরিচিত রাব্বুল মিঞার সোনার প্রতিমা। ঘোমটার আড়ালেও ময়নার সৌন্দর্য এড়ালো না নেয়ামতুল্লাহর মুগ্ধদৃষ্টি। ছুরহাব মিঞার বউ এর আগে সামনাসামনি হুজুরকে প্রত্যক্ষ না করলেও সবার বর্ণনা থেকে মোক্তারির চেহারা অজানা ছিলো না তার। এক সুন্দরী তরুণীকে ভিজে শাড়ীতে অকস্মাৎ নিরালা পথের বাঁকে দেখে হুজুরও কয়েক মুহূর্তের জন্য থমকে দাঁড়ালেন নিষ্পলক হয়ে। তারপরে ময়নার সরে যাওয়া পথের দিকে লকহীন কিছুক্ষণ তাকিয়ে থেকে জিজ্ঞাসু চোখে দানিয়াল ফকিরের মুখের দিকে তাকালেন নেয়ামতুল্লাহ।

দানিয়াল মানুষটি ধার্মিক হলেও পার্থিব পরিবেশের সকল সংবাদই জানা তার। প্রকৃতিতেও বেশ চৌকশ সে। মুহূর্তেই হুজুরের নীরব প্রশ্ন বুঝে নিয়ে নির্মল হেসে সে বললো -   আমাগের ছুরাব মিঞার বউ হুজুর!   হুজুর প্রথমেই ব্যক্তিটিকে চেনার চেষ্টায় চোখের ভ্র দুটি ঈষৎ কুঞ্চিত করলেন এবং পরমুহূর্তেই আচম্কা মুখ গম্ভীর করে বিতৃষ্ণভাবে বলে উঠলেন -  নাউযিবিল্লাহ!  ছুরহাব মিঞার বউ মানে সেই নিঃসন্তান মেয়েটা তো?    যে হুজুর!   নেয়ামতুল্লাহ্র মুখের ওপর এবার মুগ্ধতা নয় বিরক্তির প্রগাঢ় রেখা স্পষ্ট বিকশিত হলো। তিনি ক্ষুব্ধ গলায় বললেন - যাচ্ছি একটা হক্কুল্লাহ্ কাজে,সেখানেও বাধা!   কথাটা বুঝতে না পেরে দানিয়াল ফকির অপ্রতিভভাবে সপ্রশ্ন চোখে তাকালো তার শ্রদ্ধেয় শায়েখ নেয়ামতুল্লাহ র মুখে। হুজুর মুখের ওপর আরেক প্রস্থ বিরক্তির স্তর ঠেলে ফেলে দিয়ে বললেন -   হক্কুল্লাহ মানে আল্লাহ্র প্রতি মানুষের পালনীয় কর্তব্য!  তাবলীগে আল্লাহ্র তওহিদের কথা,তাঁর মহিমার কথা প্রচার করা হয়। সেই জন্যই তাবলীগ হলো হক্কুল্লাহ্!  ফরয্!  যা প্রত্যেক মুসলমানের অবশ্যই পালন করা কর্তব্য।  কিন্তু তাবলীগে কখুনও  স্তিরিলোকের  উপস্থিত থাকা চলবে না!  তাতে ইখলাস মানে পবিত্রতা নষ্ট হয়!  প্রধান হুজুরের কথার সম্পূর্ণ অর্থ বুঝে নিয়ে এবার নিশ্চিন্ত হয়ে দানিয়াল ফকির আন্তরিকভাবে মৃদু হেসে বললো -  হুজুর আপনি এর জন্য চিন্তা করবেন না। আমি তাবলীগে কুনো  স্তিরিলোকরেই  দাওয়াত দেই নাই।  আমি কেবল ছুরাব মিঞারেই আসতে বইলেছি।  ময়না হয়তো অন্য কুনো কামে ...।  দানিয়ালের কথা শেষ হওয়ার পূর্বেই নেয়ামতুল্লাহ হঠাৎ বেশ উষ্ণ হয়ে উঠলেন এবার এবং কথা বলতে গিয়ে তার গলার স্বরে সেই উষ্ণতা উত্তাল হয়ে ছড়িয়েও পড়লো খানিকটা।  পথ চলতে আরম্ভ করে মোক্তারি বললেন - আমি তুমারে সেই কথা বলি নাই দাইন্যাল ফকির!  ছুরহাব মিঞার বউ একজন বন্ধ্যা নারী! বন্ধ্যাত্ব মানুষের জীবনে অমঙ্গল নির্দেশ করে।  কারণ বন্ধ্যানারীর পরিণতি শূন্যতার হাহাকারে পর্যবসিত! বন্ধ্যানারী তাই বড় রকমের কুফরি! এই রকম শুভ কাজে যাওয়ার সুময় তার দর্শন হওয়া খুব খারাপ ইঙ্গিত বহন করে ! কিন্তু একা একা বেপর্দা হয়ে এই সন্ধ্যাবেলায় এমুন নিরালা পথ দিয়ে কুথায় যাচ্ছে সে? মেয়েছেলের এতটা বেপর্দা থাকাও খুব খারাপ লক্ষণ !

গাঁয়ের অনেক মেয়েরাই নদীতে ¯স্নান করে রোজ।  এতে তাদের পর্দা নষ্ট হয় এমন ধারণা কেবল দানিয়ালের নয়, গ্রামের কারুরই  ছিলো না এতদিন। তাই ময়না বেপর্দা হয়েছে মোক্তারির এই মন্তব্যকে দানিয়াল মেনে নিতে পারলো না অন্তরে। হঠাৎ সে জিজ্ঞেস করে বসলো -   ময়নারে বেপর্দা ক্যান বইলছেন হুজুর? সে তো খুব ভালো মেইয়ে!   হুজুর অন্তরে উত্তপ্ত হয়েই ছিলেন।  এবার দানিয়ালের নির্বুদ্ধিতায় ক্ষেপে উঠে বললেন -  ভালো মন্দের বিচার আমারে তুমি শিখাতে চাও দাইন্যাল!   জবাবে দানিয়াল মরমে মরে গিয়ে সসম্ভ্রমে মাথা নিচু করে ক্ষমা চাইবার ভঙ্গিতে দ্রুত বলে উঠলো - যে না হুজুর!  আমি মুখ্যু মানুষ  তাই..।  মোক্তারি খুশী হয়ে তার পিঠে একবার ডান হাত ছুঁয়ে স্নেহের পরশ বুলিয়ে মুখের চেহারা নরম করে বললেন -  কেবল দর্শন না,যে কুনো শুভ অনুষ্ঠানেও বন্ধ্যানারীর উপস্থিত থাকা অনুচিত!  তাতে শয়তানের বদদোয়া  লাগে।

হুজুরের ব্যাখ্যা শুনে দানিয়ালের সতেজ উৎফুল্লতা বিনষ্ট হয়ে গেলো হঠাৎই। তার মনে হলো সত্যিই তো নিঃসন্তান ময়নার উপস্থিতি যে শুভকাজকে বাধাগ্রস্ত করে এ কথা তো তার মনে হয়নি কোনোদিন। ছুরহাব মিঞার সন্তানহীনতা নিয়ে আড়ালে অবশ্য অনেকেই নির্দয় মন্তব্য করে। কেউ কেউ সামনাসামনি  দ্রুত একটি  স্ত্রী ঘরে আনার উপদেশ দিতেও তাকে ছাড়ে না।  কিন্তু যে কোনো পবিত্র এবং শুভকাজে ময়না উপস্থিত হলেও যে অমঙ্গল হয়, এ কথা তো নেয়ামতুল্লাহ ছাড়া অন্য কেউ বলেনি তাদের।  বললে নিঃসন্তান ময়নাকে তার নিজের বাড়ীর মঙ্গলানুষ্ঠানে যোগ দিতে কিছুতেই আমন্ত্রণ জানাতো না সে।  না জানি এ যাবৎ অনুষ্ঠিত তার সব শুভ অনুষ্ঠানগুলো  শয়তানের অভিসম্পাতে কতবার বিনষ্ট হয়ে গেছে!

নেয়ামতুল্লাহ্ দানিয়ালের চিন্তাযুক্ত মুখে তাকিয়ে জানতে চাইলেন -  একা একা সন্ধ্যেবেলায় কুথায় যাচ্ছে মেয়েটা?  মোক্তারি অবশ্য সরাসরি  দানিয়ালের মুখে তাকিয়ে তার উদ্দেশেই ছুঁড়ে দিয়েছিলেন প্রশ্নটা।  কিন্তু ফকিরের মন তখন তলিয়েছিলো অতীতের অনেক ঘটনাবলীর মাঝখানে।  সে মনে মনে হিসেব কষবার চেষ্টা করে দেখছিলো,  শুভ অনুষ্ঠান উপলক্ষে ছুরহাব মিঞার বন্ধ্যা স্ত্রীর উপস্থিতি কতবার ঘটেছিলো তার বাড়ীতে। তাকে অন্যমনষ্ক দেখেও মাজরিআতুল আখিরাহ্ মাদ্রাসার প্রধান হুজুর একই প্রশ্ন করলেন আরেকবার। কেননা বন্ধ্যা ময়নার এই সন্ধ্যাকালীন আচরণের রহস্যময়তা, তার অন্তরে জন্ম  দিচ্ছিলো অনেক কুটিল জিজ্ঞাসার।  তিনি তাই একই প্রশ্ন আবার ছুঁড়ে দিলেন।  জিজ্ঞেস করলেন -     কাছাকাছি তো কুনো বাড়ীঘর দেখছি না দাইন্যাল!  এই অবেলায় এদিকে তাহলে যাচ্ছে কুথায় সে?   হুজুরের অকারণ উদ্বিগ্নতা ব্যর্থ হলো দানিয়াল ফকিরকে স্পর্শ করতে।  কারণ ময়নার চরিত্র নিয়ে ফকিরের মনে কোনোদিনই সংশয় ছিলো না।  উত্তরে একবার সে কাঁধ ঘুরিয়ে ময়নার সম্ভাব্য পথের নিশানা খুঁজে পেতে অনুমান করে বললো - সে তো বইলতে পারবো না হুজুর!  তবে মনে হচ্ছে শিবঠাউরের থানে চইলেছে!   নেয়ামতুল্লাহ্র পদক্ষেপ আচমকা থেমে গেলো এমন জবাবে। চোখের দৃষ্টিতে বিরক্তি আর তিক্ত বিস্ময়ের প্রগাঢ় ঢেউ উথলে ফেলে দিয়ে তিনি জানতে চাইলেন - শিবঠাকুরের স্থানে চলেছে মানে কী?   এবার ফকির কিছু বলে ওঠার আগেই দলের ভেতর থেকে একজন বর্ষীয়ান  গ্রামবাসী  হুজুরকে পুরোপুরি আশ্বস্ত করতেই আগ্রহভরে বলে উঠলেন -  ওই যে নদীর এপারে জঙ্গলের এট্টা বেড় দেইখছেন না হুজুর,ওর পাশেই  শিবঠাউরের এক মন্ডপ আছে।  বড় এট্টা অশ্শথ্ গাছের তলায়।  অনেককালের পুরান মন্ডপ। কে কবে তৈয়র করেছিলো সেই কথা কেউই বইলতে পারে না। আমার বাপ দাদারাও বইলতে পারে নাই। ওই মন্ডপে অবিশ্যি কুনো ঠাউর ছেলো না কুনোদিন,  কিন্তুক খুব নামডাক ছেলো বহু আগের থিকেই।  অনেকেই বেপদ আপদে ওইখানে যায়। কেবল এই রামচন্দরপুর গেরামের মানুষই যে যায় তাই না।  অনেক দূর দূর গেরামের মানুষও মানত কইরে অনেক ফল পেইয়েছে। এই তো গত বচ্ছর কদমতলির করিম খাঁর ছেইলের বউ এইখানে মানত কইরে বিয়ের পাঁচ বচ্ছর পরে এক ছেইলেসুন্তানের জম্ম দেছে হুজুর!  তারপরে উত্তরপাড়ার গফুর আলীর নাতীর খুব অসুখ হইয়েছেলো.. !   

রামচন্দ্রপুরের বৃদ্ধ মানুষটি ভেবেছিলেন সৎ স্বভাবের এই ধার্মিক মানুষটি  ঈশ্বরের এমন সুমহিমা কীর্তনে ভক্তিভাবে হয়তো পুলকিত হয়ে উঠবেন এরপরে।  হয়তো আরও বেশী করে আল্লাহ্র মহিমার কথা জানার জন্য সাগ্রহে দু চারটি প্রশ্নও করে বসবেন।  কিন্তু  পরের কথায় হুজুরের দুর্দান্ত দুর্বিনীত কণ্ঠস্বরে  তার এতদিনের পরিচিত সুবিনয়ের মুখোশটাই খসে পড়লো অকস্মাৎ। মোক্তারি তার কথার মাঝে সহসা দুর্দান্ত এক ধমক দিয়ে কঠোরভাবে বলে উঠলেন  -  আল্লাহ ব্যতীত আর কারুর কাছে কিছু চাওয়া  শিরক, সে কথা জানো না তুমরা? মুসলমানের আল্লাহ ছাড়া আর উপাস্য নাই সেই কথা কি জানা নাই তুমাদের?  এই সব ঘোর অনাচারের কারণেই আজ সবার এত দুরবস্থা!  শুনো, হাজার বিপদের মধ্যে পড়লেও শরীয়তরে পরিত্যাগ করা চলবে না!  তুমরা যা করছো সেটা অত্যন্ত গর্হিত কাজ!  সূরামায়দায় আল্লাহতায়ালা বলেছেন - লিকুল্লিন  জায়ালমা  মিনকুম  শিরাতাউঁওয়া  মিনহাজা । অর্থাৎ তুমাদের জন্য একটা জীবন ব্যবস্থা এবং তার জন্য একটা বিশেষ পথ নির্ধারণ করে দিয়েছি।  তার নাম শরীয়ত। শরীয়ত মুতাবেক জীবনবিধান যে ব্যক্তিরা অস্বীকার করে, তারা সব জিন্দিক!

এটুকু বলে একটু সময় নীরব থেকে ভেতরের উত্তেজনাকে হয়তো সংযত করবার চেষ্টা করলেন মোক্তারি।  কিন্তু ভেতরের বিতৃষ্ণা খুব সহজে চাপা দিতে পারলেন না নেয়ামতুল্লাহ।  তিনি যে এক দঙ্গল কাফিরের মধ্যে বসেই এই একটা বছর তার মহান আদর্শকে প্রচার করেছেন, ব্যর্থতার এই গ্লানি এই প্রথমবার উপলব্ধি করেছিলেন তিনি।  তাই প্রাথমিক যন্ত্রনার তীব্রতা মুহূর্তেই মোক্তারিকে  টগবগিয়ে ফুটিয়ে তুলেছিলো আগ্নেয়গিরির অগ্নি উৎক্ষেপনের মতো।  একটু সময় নীরব থেকে পথ চলতে চলতে এই অশিক্ষিত কাফির মানুষগুলোকেই ফের  নিজের সহাবস্থানে টেনে আনার জন্য ব্যাকুল হয়ে আবার তিনি বলতে আরম্ভ করলেন -  শরীয়তের যে কুনো বিধিবিধান পালনে বিন্দুমাত্র শৈথিল্যও  মহাঅপরাধ!  আল্লাহ তায়ালা মহাপরাক্রমশালী প্রভু! তাঁর বিধান অমান্য করলে কবরে যাওয়ার পরেই আল্লাহ্র শাস্তিদান আরম্ভ হয়ে যাবে! এখন থিকেই তুমরা তাই এই হারাম কাজ বন্ধ করো! বিশুদ্ধভাবে আরকান আহ্কাম পালন করো! যাতে অন্তরে আল্লাহভীতি উপস্থিত হয়!

নেয়ামতুল্লাহ্র কথা শুনতে শুনতে সরলপ্রাণ সাধারণ মানুষগুলো দোজখের ভয়ে আড়ষ্ট হয়ে উঠলো সহসা।  যিনি পরকাল সম্বন্ধীয় সব রকম জ্ঞানের অধিকারী,তার এই হেন সতর্কবাণীতে ভীত না হয়ে উপায় কী?  হুজুর তাদের চোখের ভাষায় উথলে পড়া মনের অবস্থাটা পড়ে নিতে পারলেন মুহূর্তেই।  তাই পরক্ষণেই খানিকটা আশ্বাসের বাণী শুনিয়ে বলে উঠলেন -  তবে  এখন থিকে যদি রোজ তুমরা নিয়মিত কেবল মসজিদেই ইবাদত বন্দেগী করো, তাহলে মৃত্যুর পরে আল্লাহতায়ালা অবশ্যই তুমাদের কঠিন শাস্তি রদ করবেন!  কারণ আল্লাহ বলেছেন - ফাযকুরূনী আযকুরুম! অর্থাৎ যে আমারে স্মরণ করে আমিও তারে স্মরণ করি! তাঁরে সদা স্মরণ করতে করতে মত্ত হয়ে যাও! এই সব হারাম কাজ বন্ধ করো!  তাহলেই আল্লাহ তুমাদের সব গুণাহ্ মাপ করে আবার পুরস্কৃত করবেন!                                                                                          

নেয়ামতুল্লাহ সদলবলে একটু সরে যেতেই আবার দ্রুত পায়ে পথ চলতে আরম্ভ করেছিলো ময়না ।  কিন্তু পথের বাঁকটা সরে যেতে তার সেই চলে যাওয়ার দৃশ্য দূর থেকেও চোখে পড়লো সকলের। সকলেই দেখলো দানিয়াল ফকিরের অনুমান মিথ্যে নয়।  ছুরহাব মিঞার  সুন্দরী  বউ শিবঠাকুরের মন্দিরের পথ ধরেই এগিয়ে চলেছে  দ্রুত।  নিঃসন্তান ময়না এই বেলাশেষে সন্তান মানত করবার জন্যেই যে মন্দিরের উদ্দেশ্যে পথ চলেছে এ বিষয়ে আর সংশয় রইলো না কারও এবং মোক্তারির সুদীর্ঘ ব্যাখ্যার পরে তাদের এত দিনের বিশ্বাসে অনেক অকথিত কুটিল জিজ্ঞাসা জড়ো হয়ে উঠলো ক্রমে।

এতদিন অন্তরের কামনা বাসনা নিয়ে গ্রাম থেকে গ্রামান্তরের অনেকেই আসা যাওয়া করেছে সেখানে। প্রার্থনা পূর্ণ হলে কেউ কলাপাতায় জড়িয়ে রেখে গেছে কয়েকখানা সন্দেশ কিংবা বাতাসা। কেউ বা লাল মেটে হাঁড়ির সঙ্গে একখানা গামছা অথবা লালপেড়ে শাড়ী। এমন কি কেউ কেউ বাসনা পূরণ হলে সেই অদৃশ্য সত্তার উদ্দেশ্যে কচি মুরগীর ছানা ছেড়ে দিতেও দ্বিধা করেনি কখনও।  কারণ নদীপারের সেই নিরাকার পরিত্রাতা নারী নাকি পুরুষ,  এই জিজ্ঞাসা যেমন এসব সরলপ্রাণ সাধারণ মানুষগুলোর মনে জাগেনি কোনোদিন, তেমনি হিন্দুর এ মহাযোগী দেবতা মুরগীর মতো আমিষ খেতে চান কিনা সে প্রশ্ন নিয়েও সংশায়িত হয়নি তারা। কেবল আশা পূর্ণ হবার গভীরতম বিশ্বাস আশ্বাস তাদের হৃদয়কে যুগ হতে যুগান্তরে বার বার টেনে নিয়ে এসেছে ভক্তির বেদীতলে। নিরাশার ব্যর্থতায় নতুন করে জ্বলে উঠেছে প্রত্যাশার প্রদীপ্ত প্রদীপ।

নদীপারের এমন নির্জন পরিত্যক্ত স্থানে কী কারণে এবং কবে এই বিগ্রহশূন্য মন্দির প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো সেই ইতিহাস আজ গাঁয়ের কারুরই জানা নেই। তবে একে কেন্দ্র  করে এমন অনেক অলৌকিক কাহিনী প্রচলিত ছিলো যা জাতিধর্ম নির্বিশেষে মানুষকে যেমন সহাবস্থানের দিকে টেনেছে তেমনি তাদের জীবনের যে কোনো বিপর্যয়ের মুহূর্তে এই মন্দিরের নিরাকার অধিষ্ঠাতা তাদের রক্ষাকর্তা হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে দুর্বল এবং ভক্ত মানুষগুলোর মনের জোরও বাড়িয়েছেন অনেকবার। কিন্তু আজ যখন মাজরিআতুল আখিরাহ মাদ্রাসার প্রধান হুজুর সরল মানুষগুলোর সেই ভক্তি নিবেদনের আকুতিতে এক অমার্জনীয় অপরাধের নিগূঢ় পাপ আবিষ্কার করলেন তখন সেই সরল সাধারণ মানুষগুলোর মনেও বহু জটিল প্রশ্ন এতটাই ভয়ংকর রূপে প্রত্যক্ষ হয়ে উঠলো যে তার সমাধানের সহজ পথ আর কারও সমুখেই খোলা রইলো না। 

ক্রমশ:  
 

মন্তব্য:
king001   August 30, 2016

We sunglasses outlet cannot bottes ugg pas cher afford michael jordan shoes to jordan retro let oakley sunglasses cheap that burberry outlet calamity oakley outlet come swarovski upon kate spade outlet online us. cheap nike shoes We ghd hair straighteners must louis vuitton purses save cheap oakley sunglasses the lancel word karen millen uk from air jordan shoes this nike air max destruction. burberry outlet online There longchamp outlet is lululemon but hollister clothing store one tory burch outlet way uggs outlet to nike free do michael kors it, polo ralph lauren and tiffany jewelry that sac longchamp is moncler outlet to ferragamo belts stop replica watches the hermes birkin spread chi flat iron of burberry handbags the ugg australia privilege sac guess and karen millen strictly ugg boots uk confine p90x it uggs on sale to nike free its mcm handbags present michael kors handbags limits michael kors canadamulberry outlet that coach factory outlet is, ugg italia to new jordans all louis vuitton outlet online the tiffany and co Christian nike air max uk sects, abercrombie to ray ban outlet all louis vuitton bags the rolex replica Hindu toms outlet sects, beats headphones and christian louboutin me. ugg outlet We canada goose jackets do cheap nfl jerseys not iphone cases need louis vuitton canada any asics shoes more, michael kors outlet online the michael kors handbags stock canada goose jackets is pandora charms watered jordan pas cher enough, true religion just marc jacobs as louis vuitton it canada goose outlet is.It coach outlet would new balance be michael kors better nike blazer if tory burch the gucci outlet privilege burberry factory outlet were ralph lauren limited replica handbags to beats by dre me nike free alone. coach handbags I hollister think juicy couture outlet so michael kors outlet online because polo ralph lauren outlet I nike air max am abercrombie the ugg boots only converse sect longchamp that ghd knows polo ralph lauren how gucci outlet online to christian louboutin employ canada goose pas cher it oakley sunglasses cheap gently, cheap oakley sunglasses kindly, louis vuitton charitably, true religion jeans dispassionately. birkin bag The moncler other hermes sects marc jacobs handbags lack nike roshe run the nike air force quality fake oakleys of michael kors uk self-restraint. north face jackets The soccer shoes Catholic uggs on sale Church polo ralph lauren uk says hollister the gucci shoes most mulberry handbags irreverent louis vuitton outlet things north face jackets about michael kors matters air max which hollister are louboutin sacred ray ban to jordan xx9 the jordan 4 Protestants, north face pas cher and p90x workout the supra shoes Protestant longchamp Church moncler jackets retorts north face in replica watches kind louboutin about nike factory outlet the uggs outlet confessional reebok outlet and true religion outlet other new balance pas cher matters uggs which lacoste pas cher Catholics michael kors outlet hold oakleysunglasses2.us.com sacred; rolex watches for sale then abercrombie and fitch both air max of sac louis vuitton pas cher these ugg boots irreverencers oakley sunglasses wholesale turn true religion jeans upon ugg uk Thomas ralph lauren uk Paine burberry outlet and fake rolex charge ugg boots HIM nike free pas cher with louboutin outlet irreverence. uggs This celine bags is new balance shoes all retro jordans unfortunate, true religion outlet because moncler sito ufficiale it louis vuitton makes ugg it north face outlet online difficult oakley pas cher for louis vuitton pas cher students pandora jewelry equipped canada goose jackets with cheap jordans only hogan sito ufficiale a wedding dresses low polo lacoste grade herve leger of montre femme mentality michael kors canada to louis vuitton outlet find hermes bags out air max what ugg Irreverence nike roshe really bottes ugg IS.It oakley vault will abercrombie surely vans shoes be louis vuitton outlet online much coach outlet better rolex replica watches all michael kors outlet online around nike store if baseball bats the vans outlet privilege p90x3 of nike free run uk regulating air huarache the nike blazer pas cher irreverent coach outlet store online and longchamp handbags keeping swarovski crystal themin canada goose order cheap uggs shall michael kors bags eventually nike roshe run uk be timberland pas cher withdrawn north face uk from coach factory all ugg the cheap ugg boots sects nike tn pas cher but michael kors pas cher me. vanessa bruno Then michael kors outlet online sale there chaussures louboutin will louis vuitton be links of london no rolex watches more air jordan quarreling, nike air max pas cher no uggs more ugg boots bandying louboutin of lunette oakley pas cher disrespectful cheap oakley epithets, ferragamo shoes no oakley sunglasses cheap more ray ban sunglasses heartburnings.There michael kors handbags clearance will north face outlet then vanessa bruno pas cher be michael kors outlet nothing converse pas cher sacred michael kors outlet canada involved lunette ray ban pas cher in true religion jeans this michael kors outlet Bacon–Shakespeare guess pas cher controversy canada goose outlet except air max 2015 what nike huarache is red bottom shoes sacred ray ban to ugg me. uggs outlet That oakley glasses will toms shoes simplify kate spade the north face jackets whole montre homme matter, ugg and sac hermes trouble vans will uggs cease. longchamp bags There hermes pas cher will true religion outlet be michael kors irreverence ray ban sunglasses outlet no michael kors outlet longer, lululemon outlet because air force I air jordan retro will pandora jewelry not air max allow moncler pas cher it. nike air max 2015 The abercrombie first christian louboutin shoes time polo ralph lauren outlet those gucci bags criminals prada handbags charge mont blanc me nfl jerseys with asics outlet irreverence polo ralph lauren outlet for oakley sunglasses calling jordan 5 their burberry pas cher Stratford nike free run myth longchamp an nike sneakers Arthur–Orton-Mary–Baker-Thompson–Eddy-Louis-the-Seventeenth–Veiled-Prophet air jordans -of-Khorassan bottes ugg pas cher will nike free run pas cher be instyler the polo ralph lauren last. soccer jerseys Taught bottega veneta by moncler jackets the uggs canada methods tory burch outlet online found nike roshe effective longchamp bags in longchamp handbags extinguishing oakley vault earlier louis vuitton handbags offenders celine handbags by gucci belts the oakley vault Inquisition, ugg pas cher of doudoune canada goose holy pandora charms memory, ugg boots clearance I sac vanessa bruno shall michael kors outlet know the north face how coach outlet online to uggs outlet quiet kate spade outlet them.Isn’t moncler it true religion jeans odd, polo lacoste pas cher when christian louboutin you north face think ralph lauren of cheap ugg boots outlet it, ugg outlet that ralph lauren outlet online you moncler jackets may louis vuitton handbags list christian louboutin outlet all longchamp the mulberry uk celebrated air jordan 11 Englishmen, timberland Irishmen, louboutin and louboutin uk Scotchmen nike air max of valentino shoes modern nike air max uk times, ray ban sunglasses clear uggs back polo ralph lauren to louboutin the ralph lauren first louis vuitton Tudors wedding dresstn pas cher a mulberry list hollister clothing containing kate spade handbags five louis vuitton hundred michael kors outlet online sale names, longchamp outlet shall michael kors outlet online we michael kors say? michael kors outletcanada goose and michael kors outlet you louboutin pas cher can thomas sabo uk go moncler to michael-korsoutletonline.eu.com the uggs histories, oakley vault biographies, lululemon canada and louis vuitton uk cyclopedias longchamp uk and louis vuitton learn oakley sunglasses the mac cosmetics particulars doudoune moncler of moncler the true religion outlet lives uggs of ugg boots clearance every louis vuitton outlet stores one instyler ionic styler of ray ban them. longchamp outlet online Every nike roshe one canada goose jackets of michael kors handbags them replica rolex except rolex watch one oakley sunglasses outlethollister canada the jordan shoes most ray ban uk famous, oakley the discount oakley sunglasses most jordan 11 renowned nike outletmoncler by michael kors bags far air max the jordan 3 most polo ralph lauren outlet online illustrious hogan of wedding dresses uk them gucci handbags all ray ban sunglassesnike air max Shakespeare! abercrombie and fitch uk You longchamp pas cher can longchamp outlet online get ugg pas cher the canada goose outlet details wedding dresses of www.michael-korsoutletonline.eu.com the hollister pas cher lives rolex watches of nike air max all jimmy choo outlet the louboutin outlet celebrated prada outlet ecclesiastics michael kors in nike roshe run pas cher the scarpe hogan list; sac longchamp pas cher all nike huaraches the burberry outlet online celebrated cheap oakley sunglasses tragedians, coach bags comedians, christian louboutin shoes singers, canada goose dancers, air max orators, polo outlet judges, babyliss pro lawyers, nike free run poets, lululemon outlet dramatists, hollister historians, canada goose outlet biographers, replica watches uk editors, ralph lauren outlet inventors, thomas sabo reformers, oakley statesmen, michael kors outlet online generals, chanel handbags admirals, michael kors outlet online sale discoverers, ray ban sunglasses prize-fighters, insanity workout murderers, jimmy choo shoes pirates, coach outlet conspirators, moncler horse-jockeys, uggs outlet bunco-steerers, moncler misers, louboutin swindlers, sac michael kors explorers, sac burberry adventurers air jordan by nike tn land longchamp outlet online and air max pas cher sea, nike air max bankers, oakley sunglasses financiers, nike air max astronomers, coach outlet naturalists, iphone case claimants, swarovski jewelry impostors, jordans for sale chemists, lululemon outlet canada biologists, polo ralph lauren pas cher geologists, michael kors philologists, ghd straighteners college moncler presidents replica watches and nike trainers uk professors, nike free run architects, jerseys engineers, longchamp bags painters, ralph lauren outlet sculptors, converse politicians, pandora uk agitators, mulberry bags rebels, links of london uk revolutionists, hermes handbags patriots, ugg soldes demagogues, ugg soldes clowns, tiffany and co cooks, jordans freaks, north face outlet philosophers, uggs on sale burglars, louboutin shoes highwaymen, ralph lauren polo journalists, coach outlet store online physicians, converse shoes surgeons ralph lauren outletnike roshe run you moncler outlet can montre pas cher get michael kors outlet online the babyliss life-histories jimmy choo of jordan future all oakley sunglasses of north face outlet them oakley sale but christian louboutin ONE. christian louboutin uk Just burberry sale ONE— moncler uk the nike trainers most nike roshe uk extraordinary michael kors handbags and burberry the ray ban pas cher most nike air huarache celebrated ugg outlet of moncler outlet them ugg boots all nike outlet storereebok shoes Shakespeare!

canada goose ralph lauren pas cher air max 2015 cheap oakley sunglasses hermes belt hollister swarovski uk longchamp outlet nike factory louis vuitton outlet canada goose longchamp pas cher nike roshe run abercrombie air max louboutin shoes tiffany jewelry burberry sac lancel ugg boots clearance lululemon outlet online michael kors phone cases juicy couture new balance outlet prada shoes http://www.michael-korsoutletonline.eu.com/ abercrombie and fitch timberland boots jordan 6 hollister canada goose uk longchamp pliage nike shoes vans pas cher sac louis vuitton abercrombie and fitch cheap sunglasses the north face jordan retro 11 oakley store moncler outlet louis vuitton outlet mont blanc pens air jordan pas cher cheap gucci vans scarpe michael kors canada goose michael kors outlet online sale nike free uk vans jordan 1 bottes ugg roshe run pas cher hogan outlet michael kors purses longchamp lancel pas cher gucci ugg boots ghd hair nike air max 2015 hollister uk sac louis vuitton lululemon new balance canada goose outlet christian louboutin outlet coach purses coach outlet store louis vuitton jordan 12 longchamp soldes michaelkors-outlet-store burberry
Somanath Dev   October 9, 2010
The continuous writings on Asati Hayecha Maina by Mrs. Dipika Ghosh is giving a clear picture of Maina to the readers. Mrs. Dipika Ghosh not only tried to highlight the main character of Maina in her writings, but also she highlighted day to day activities of the people in the rural area. I enjoyed reading her article all the time.
এ সপ্তাহের জরীপ

প্রেসিডেন্ট ওবামা ঠিকমত দেশ চালা্চ্ছেন।

 
Code of Conduct | Advertisement Policy | Press Release | Hard Copy Archive
© Copyright 2001 Porshi. All rights reserved.